শেখ হাসিনার মুক্তি দাবি করায় একবছর কারাভোগ করেন জামালপুর-৪ আসনের আওয়ামীলীগ প্রার্থী ছানোয়ার হোসেন

Jamalpur-04-Sanuar-Hossain-Badsha.jpg

রোকনুজ্জামান সবুজ, জামালপুর :
বিগত ওয়ান ইলেভেনে কারাবন্দি আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার মুক্তি দাবি করে বিক্ষোভ মিছিল এবং সমাবেশ করায় এক বছর কারাভোগ ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ছানোয়ার হোসেন বাদশা। সাবেক ছাত্রনেতা ছানোয়ার হোসেন বাদশা বর্তমানে সরিষাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। তিনি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ি) আসন থেকে নির্বাচন করতে দলীয় মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। জানা গেছে, ২০০৭ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে কারাবন্দি করে রাখে তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার। দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনার মুক্তি দাবি করে তারাকান্দিতে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ওই মিছিল সমাবেশে নেতৃত্বদানকারী তৎকালীন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছানোয়ার হোসেন বাদশা ঘোষণা দেন শেখ হাসিনাকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়া না হলে সরিষাবাড়ি অচল করে দেয়া হবে। শেখ হাসিনার মুক্তির দাবিতে ওই ঘোষণায় মিছিল সমাবেশ করায় ছানোয়ার হোসেন বাদশার নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে ২০০৭ সালের ১১ এপ্রিল গ্রেপ্তার করা হয়। প্রায় এক বছর কারাগারে আটক থাকেন জননেতা ছানোয়ার হোসেন বাদশা। তার উপর চালানো হয় নির্যাতন। বন্ধ করে দেয়া হয় ছানোয়ার হোসেন বাদশা সম্পাদিত জামালপুরের প্রথম প্রকাশিত একটি দৈনিক ও একটি সাপ্তাহিক পত্রিকাসহ তার সব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। যে পত্রিকা দুটি স্থানীয় আওয়ামী লীগের মুখপত্র হিসেবে প্রকাশিত হয়ে আসছে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় নির্যাতন ও হয়রানীর শিকার বাদশা একবছর পর কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান অসুস্থ অবস্থায়। সরিষাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা জানান, ছাত্রলীগের ওয়ার্ড কমিটির সদস্য দিয়ে তার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়। এর পর তিনি ইউনিয়ন ছাত্রলীগ, উপজেলা ছাত্রলীগ, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, যুবলীগ করার পর সরিষাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন দীর্ঘ ২২ বছর। বর্তমানে তিনি সরিষাবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। ৪৩ বছরের রাজনৈতিক জীবনে ছানোয়ার হোসেন বাদশা ১১ বার মিথ্যা মামলায় কারাভোগ করেন। জীবনের শেষ সময়ে এসে নির্যাতিত এই নেতা জামালপুর-৪ (সরিষাবাড়ি) আসনে নির্বাচনে অংশ নিতে দলীয় মনোনয়ন দাখিল করেছেন। নৌকা প্রতীক পেলে তার বিজয় নিশ্চিত বলেও মনে করেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী সমর্থক ছাড়াও সাধারণ ভোটাররা।ছানোয়ার হোসেন বাদশা বিগত এক বছর তার নির্বাচনী এলাকায় শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে প্রচারপত্র বিলি এবং সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকা প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করে ত্যাগী এই নেতা শীর্ষে অবস্থান করছেন।

Top