দীর্ঘ অপেক্ষার পর পঞ্চগড়বাসী পাচ্ছে আন্তঃনগর ট্রেন

download-2-2.jpg

এম. এ নাঈম, পঞ্চগড়:
দীর্ঘ অপেক্ষার পরে পঞ্চগড়বাসীর স্বপ্নের দাবি পঞ্চগড়-ঢাকা সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচলের দিন নির্ধারণ করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এর আগে গত ২৩ অক্টোবর রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের মহাব্যবস্থাপকের কাছে পাঠানো রেলওয়ের ট্রাফিক ট্রান্সপোর্টেশন বিভাগের উপ-পরিচালক খালিদুন নেছা স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়, ঢাকা-দিনাজপুরের মধ্যে চলাচলকারী দ্রুতযান এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস ট্রেন একই ধরনের কোচ, কম্পোজিশনে লাল-সবুজ রংয়ে ইন্দোনেশিয়ান কোচ দিয়ে পরিচালনা করা হবে। বর্তমানে একতা এক্সপ্রেস ট্রেন সোমবার আর দ্রুতযান বুধবার বন্ধ থাকে। ট্রেনগুলো তিনটি রেক দিয়ে চালানো হবে। নতুন সময়সূচিতে এই দুটি ট্রেনের সাপ্তাহিক কোনো বন্ধ থাকবে না।
জানা যায়, ১০ নভেম্বর সকাল ৭টা ২০ মিনিটে পঞ্চগড়ে দ্রুতযান এক্সপ্রেস উদ্বোধনের পর ৭টা ৫৮ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশ্যে পারি দিবে। আবার রাতে একতা এক্সপ্রেস পঞ্চগড় থেকে ৯টা ৪০ মিনিটে ছেড়ে যাবে।
স্থানীয়রা বলেন, এ মাসেই ট্রেন চলাচল শুরু হতে যাচ্ছে শুনে আমরা খুবই আনন্দিত। অবশেষে পঞ্চগড়বাসীর স্বপ্নের দাবি ঢাকা যাওয়ার জন্য সরাসরি আন্তঃনগর ট্রেন চালু হচ্ছে। “পঞ্চগড়বাসী” নামক সামাজিকক সংগঠনের সংগঠক মুহাম্মদ রনি মিয়াজী বলেন, ট্রেন চালু হলে এ জেলার বাইরে পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের অনেক সুবিধা হবে। রাস্তায় যানজটের ভোগান্তিসহ বেকার ছাত্রছাত্রীদের অর্থের অপচয় অনেকটা রোধ হবে। তিনি আরো বলেন ২০১৭ সালে ঠাকুরগাঁও এ প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় আমরা পঞ্চগড়বাসীর ব্যানারে আন্তঃনগর ট্রেনের দাবী জানিয়েছি অবশেষে আমাদের কাংখিত দাবী পূরণ হতে যাচ্ছে। এজন্য আমরা অত্যন্ত আনন্দিত।
ব্যবসায়ী মোঃ আব্দুর রউফ জানান, ব্যবসায়িক কাজে তাঁকে মাসে তিন থেকে চারবার ঢাকা যাতায়াত করতে হয়। কিন্তু ঢাকা যাওয়ার উদ্দেশ্যে যখন তিনি বাসে ওঠেন তখন সড়ক দুর্ঘটনার ভয়ে খুব দুশ্চিন্তায় থাকেন। ঢাকা যাওয়ার অন্য কোনো ব্যবস্থা না থাকায় অনেকটা বাধ্য হয়ে জীবনবাজি রেখে বাসে ভ্রমণ করতে হয়। তাই ট্রেন চালু হলে সবদিক থেকে এগিয়ে যাবে পঞ্চগড়বাসী।

Top