ঠাকুরগাঁওয়ে হাইব্রিড ধান চাষ করে লাভবান হচ্ছে কৃষক।।।

received_916512535201039.jpeg

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি :
ঠাকুরগাঁওয়ে ৫টি উপজেলায় আগাম জাতের ব্রিধান-৬২, বিনা-৭ ধান সহ বিভিন্ন হাইব্রিড ধান চাষ করে লাভবান হচ্ছে কৃষক । এ ধান ৯০ হতে ১০০ দিনে সংরক্ষন করা যায়। তাই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ক্ষুদ্র চাষীদের মধ্যে হাইব্রিট ধান চাষ। এতে বদলে দিচ্ছে ক্ষুদ্র চাষীদের জীবন। সদর উপজেলার বেশ কিছু চাষীর সাথে কথা বলে জানা যায়, এই আগাম জাতের ধান চাষ করে চাষীরা তাদের ভাগ্য বদলে দিয়েছে। বর্তমান বাজারে আগাম ধান পাকায় চাহিদাও রয়েছে। বর্তমানে বাজারে প্রতিমন ধান ৬০০-৬৫০/- টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। আগাম ধান পাকায় বিভিন্ন অটো রাইস মিল সংরক্ষণ করছে এই ধানগুলো। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা রুহিয়া ইউনিয়নের ঘনিমহেশপুর গ্রামের কৃষক মোঃ হাসিবুল ইসলাম ও মোঃ পশিরুল ইসলাম সহ আরো অনেকে জানান, আগাম জাত ধান রোপন করে ৩৩ শতাংশ জমিতে খরচ হয়েছে ৩৫০০-৪০০০/- টাকা, ধান আসবে ১৬-১৭ মন। এতে করে অল্প দিনেই আগাম ধান কেটে যেমন লাভবান হওয়া যায়; অপরদিকে আগাম শীতকালীন সবজি চাষ করেও লাভবান হওয়া যাবে। এ ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: আনিছুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ বছর সদর উপজেলায় বিনা-৭, দুই হাজার নয়শত হেক্টর, ব্রিধান-৬২ এক হাজার হেক্টর এবং অন্যান্য হাইব্রিট ধান চার হাজার সাতশত হেক্টর জমিতে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে এবং ধান কাটা শুরু হয়েছে।

Top