পথ শিশুরা কেন এত অবহেলিত?—সিনজাত রহমান সানি

IMG_20181016_142805.jpg

———————–
জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থা ২০১১ সালের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৮ বছরের নিচে যেসব শিশু রাস্তায় দিনাতিপাত করে, রাস্তায় কাজ করে, রাস্তায় ঘুমায়, যাদের নির্দিষ্ট কোনো আবাস্থল নেই, প্রতিদিনের জীবনযাপন রাস্তাকে কেন্দ্র করে, তারাই পথশিশু।
ব্যস্ত নগরীর নিত্য দিনের চিত্র কাঁধে বস্তা নিয়ে পথ শিশুদের বিচরণ। সভ্য সমাজের মানুষের কাছে যারা পরিচিত ‘টোকাই’ নামে।যাদের কাজ কাগজ, বোতল, রাস্তায় পরে থাকা যত্র-তত্র জিনিস কুড়ানো,কেউ বা বাস্তায় ঘুরে ঘুরে বেঁচে ফুল। রাত হলে যাদের ঘুমানোর জায়গা টিও ঠিক নেই।ছোট বেলা থেকেই বড় হয়েছে অনাদরে। রাস্তার পাশে জেগে উঠা আবর্জনার স্থূপ,রেললাইনের ধারে, এখানে-সেখানে নোংড়া অপরিচ্ছন্ন স্থানটুকুই আশ্রয়স্থল হিসেবে বেছে নেয় ওরা। ভূমিষ্ট হওয়ার পর থেকেই ওরা অনাদর, অবহেলা আর বঞ্চনার শিকার হয়েছে ধাপে ধাপে। চড়-থাপ্পর গালি-গালাজ যাদের নিত্য দিনের সঙ্গী । সারাটা দিন দু’মুঠো ভাতের আশায় ঘুরে বেড়ায় যেখানে-সেখানে।কোন দিন বা কাটে অনাহারে,তাদের দিকে ভ্রুক্ষেপ করার বিন্দুমাত্র সময় নেই যেন কারো।

জাতিসংঘের তথ্যমতে, বর্তমানে বিশ্বে পথ শিশু রয়েছে প্রায় ১৫০ মিলিয়ন। বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি সংস্থার তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে বলা যায়, দেশে বর্তমানে প্রায় ১১ লাখ পথশিশু রয়েছে; যার ৭৫ ভাগেরই বাস রাজধানী ঢাকায়।বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিসের (বিআইডিএস) হিসাবমতে, শুধু ঢাকা শহরে প্রায় ৪ লাখ ৫০ হাজার পথশিশু রয়েছে। বিশেষ করে সদরঘাট, গাবতলী, সায়েদাবাদ, টঙ্গী, এয়ারপোর্ট ও কমলাপুর রেলস্টেশনে এদের অবস্থান বেশি লক্ষণীয়।পথশিশুদের নিয়ে কেক কাটা, বছরে একদিন তাদের সঙ্গে ইফতার করা, শিশু দিবসে কিছু প্রোগ্রাম করা এতটুকুতেই সীমাবদ্ধ অামাদের সমাজ।
সমাজের কতিপয় অসৎ মানুষ অপরাধ মূলক সকল কাজ এদের দ্বারা হাসিল করে। বেঁচে থাকার তাগিদে করে চুরি, ডাকাতি, মাদক চোরাচালান সহ বিভিন্ন অসামাজিক অপরাধ মূলক কাজ করে তারা ।দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে যার পরিধি।পথ শিশুদের জন্য নেই কোন পূর্নবাসন, শিক্ষার ব্যবস্থা ,যার ফলে সমাজে যেমন কোন উপকার হচ্ছে না, উল্টো দিকে বাড়ছে অপরাধ মূলক কাজ। সঠিক পূর্নবাসন ও শিক্ষার অাওতায় অানা গেলে দেশে যেমন দক্ষ জনশক্তি গড়ে উঠবে অন্যদিকে সমাজ ফিরে পাবে তার স্বাভাবিক পরিবেশ।

শিক্ষার্থী,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

Top