ইভিএম এবং আসন্ন নির্বাচন সমাচার–ওসমান গনি শুভ

received_549276428841502-528x540-528x540-1.jpeg

———————

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনকে সংক্ষেপে ইভিএম নামে অভিহিত করা হয়। আধুনিক বিশ্বে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ভোট প্রয়োগ বা সংশ্লিষ্ট ভোটারদের স্বীয় মতামত প্রতিফলনের অন্যতম মাধ্যম হলো ইভিএম। ভোট প্রয়োগে মেশিন বা ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি অনুসৃত হয় বিধায় সামগ্রিক প্রক্রিয়াটি ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম নামে পরিচিত। ইলেকট্রনিক প্রক্রিয়ায় এটি একাধারে সঠিকভাবে ভোট প্রয়োগ ও দ্রুততার সাথে ভোট গণনা করতে সক্ষম। এছাড়াও ভোট গ্রহণে স্বচ্ছতা ও উপযুক্ত ক্ষেত্র হিসেবে ক্রমশই সমগ্র বিশ্বে এটি জনপ্রিয়তা অর্জন করতে চলেছে।

১৯৬৪ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৭টি অঙ্গরাজ্যের নির্বাচনে এই পদ্ধতি অনুসৃত হবার মাধ্যমে দৃশ্যতঃ প্রথমবারের মত ইভিএম ব্যবহারের চিত্র চোখে পড়ে। ১৯৬০ এর দশক হতে ইলেকট্রনিক ভোটিং পদ্ধতি প্রয়োগে নির্বাচন হয়ে আসছে।

বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো স্থানীয় নির্বাচনে এই পদ্ধতির পরীক্ষামূলক ভোটদান পদ্ধতি চালু হয়। এবার আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে প্রথমবারের মতো এই পদ্ধতি ব্যবহার করা হবে।এই নিয়ে জনমনে তৈরি হয়েছে নানান ধরনের প্রশ্ন। ইভিএম কি পারবে জনগণের চাহিদা পূরণ করতে? এটি কি সুষ্ঠু এবং সুন্দর নির্বাচন উপহার দিতে পারবে?

ব্রাজিল এবং ভারতে সকল ভোটার সকল ধরণের নির্বাচনে এই ভোটিং পদ্ধতি ব্যবহার করেন। এছাড়াও ভেনেজুয়েলা এবং যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপকভাবে এই ভোটিং পদ্ধতির প্রচলন রয়েছে। নেদারল্যান্ডে ই-ভোটিং কার্যক্রমের প্রয়োগ হয়েছে। কিন্তু জনগণের আপত্তির মুখে তা প্রত্যাহার করতে বাধ্য হয়েছে ডাচ সরকার। ইন্টারনেট মাধ্যমে ভোট প্রয়োগ ক্রমশই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। যুক্তরাজ্য, এস্তোনিয়া এবং সুইজারল্যান্ডে সরকারি নির্বাচনসহ রাজনৈতিক বিষয় সম্পর্কে জনমত গ্রহণের মাধ্যমে গণভোটেও এর ব্যবহার হয়ে থাকে। এছাড়াও কানাডার পৌর নির্বাচনে এবং যুক্তরাষ্ট্র ও ফ্রান্সের দলীয়ভাবে প্রাথমিক নির্বাচনের জন্য ইভিএমের মাধ্যমে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হয়।

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করবেন ইসি। সে লক্ষ্যে দেড় লাখ ইভিএম কেনার জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে একটি প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। তবে ইভিএম যন্ত্রটি ব্যবহার করার আগে এর আইনটি সংশোধন করা দরকার। জাতীয় নির্বাচনের পরেই সারাদেশের সব উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ; সেখানেও ইভিএম ব্যবহার করার চিন্তা ইসির।

অন্যদিকে বি এন পি সহ বেশিরভাগ রাজনৈতিক দল সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে আপত্তি করলেও ৩২ হাজার ৮২৯ কোটি টাকার একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে ইসি। দেড় লাখ ইভিএম কেনার জন্য একটি প্রস্তাব পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে।

মো.ওসমান গনি শুভ
শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

Top