সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার মুক্তারপুর গ্রামে একটি বাল্যবিবাহের প্রস্তুতি সম্পন্ন

download-1-6.jpg

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার বাহারা ইউনিয়নের মুক্তারপুর গ্রামে একটি বাল্যবিবাহের প্রস্তুতি চলছে বলে খবর পাওয়া গেছে। মেয়ে শিশুটির নাম রীমা রানী দাস(১২)। সে মুক্তারপুর গ্রামের কৃপাময় দাসের মেয়ে এবং কুতুবপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী বলে জানা যায়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায় শনিবার সন্ধ্যায় একই গ্রামের সখিচরণ দাসের ছেলে বেনু দাসের (১৯) সাথে শিশুটির বিয়ে হওয়ার কথা রয়েছে। সরকার বাল্যবিবাহ রোধে কঠোর আইন প্রয়োগ করলেও আইন শৃংখলা বাহিনীর চোখ ফাঁিক দিয়ে কিভাবে গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের গণমান্য ব্যক্তিরা বাল্যবিবাহটি সম্পন্ন হতে চলেছে দেখেও তারা বিবাহটি বন্ধে এর কোন প্রতিবাদ বা প্রতিকার করেননি। হিন্দু শান্ত্র মতে বিয়ের আগেই মঙ্গলাচরণ সম্পন্ন করার বিধান থাকায় ইতিমধ্যে বরের পক্ষ ও মেয়ের পক্ষের সম্মতিক্রমে এ কাজটি সম্পন্ন করা হয়েছে। এখন শুধু আজ বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা বাকি ।
এ ব্যাপারে বাহারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিধান চন্দ্র চৌধুরী বিয়ের প্রস্তুতির সত্যতা স্বীকার করে জানান,আমি খবর পেয়ে ছেলে ও মেয়ের বাড়িতে গিয়ে বিয়েটা বন্ধ করে দিয়েছি এবং মেয়ের অভিভাবকদের বলে এসেছি শিশুটির জন্মনিবন্ধন নিয়ে চেয়ারম্যান অফিসে আসার জন্য।
এ ব্যাপারে শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ দিলোয়ার হোসেন জানান আমি বিষয়টি শুনেছি খবর নিয়ে দেখছি।
এ ব্যাপারে শাল্লা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাছুম বিল্লাহ’র সাথে একাধিকবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলেও উনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

Top