দোয়ারাবাজারে হত্যা চেষ্টা মামলার আসামী গ্রেফতার: স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান

41815264_1969207283379908_8733993468759638016_n.jpg

এম এ মোতালিব ভুঁইয়া :
দোয়ারাবাজারের নরসিংপুর ইউনিয়নের নরসিংপুর গ্রামের মৃত বদরুল আলমের পুত্র মো:রফিকুল ইসলাম কে গত ১৪ই আগষ্ট ২০১৮ রাত ১২.৩০ঘটিকায় নিজ বাড়ীর সামনে অজ্ঞাতনামা দুস্কৃতিকারীরা প্রাণে হত্যার উদ্দেশে ধারালো অস্ত্র দ্বারা মাথায়, ডান কানে, ডান হাতের আঙ্গুলে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে দ্রুত চলে যায়। তিনি অন্ধকার থাকায় কোপানোর সময় দুস্কৃতিকারীদেরকে দেখতে পান নাই। দ্রুত তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ১১নং ওয়ার্ডে ভতি করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়।
রফিকুল ইসলামের চাচা ফজলুর রহমান মেম্বার বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দাখিল করেন,দোয়ারাবাজার থানার মামলা নং-৮ তারিখ-১৯/০৮/১৮খ্রিঃ ধারা-১৪৩/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৪ পেনাল কোড-১৮৬০ রুজু করা হয়। যার তদন্ত ভার এসআই রাকিবুল হাসান এর উপর ন্যস্ত করা হয়।
এই ঘটনায় পুলিশ তদন্ত করে জানতে পারে উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের খাইরগাও গ্রামের মৃত ইরশাদ আলীর পুত্র রিপন মিয়া(৩৫) এই ঘটনার সাথে জড়িত। গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে এসআই রাকিবুল হাসান এর নেতৃত্বে আসামী রিপন মিয়া কে ১৪সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট থানাধীন লামানী গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃত আসামী রিপন মিয়া কে ১৫সেপ্টেম্বর বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হলে, সে বিজ্ঞ আদালতে স্বেচ্ছায় ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে।
এদিকে এসআই ফরিদ মিয়ার নেতৃত্বে গ্রেফতারি পরোয়ানাভুক্ত আসামী উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের সুনাইত্যা গ্রামের নুরুল ইসলাম সাধুর পুত্র শাহিন মিয়া (৩০)কে আটক করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।
দোয়ারাবাজার থানার ওসি সুশীল রঞ্জন দাস সত্যতা স্বীকার করে বলেন,রিপনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হলে ১৬৪ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছে,তাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সত্য ঘটনা জানা যাবে ৤

Top