হুমায়ুন আজাদের প্রবন্ধ থেকে:- কোরআনে নারীর প্রতি এ কেমন অমানবিকতা!!!

images-1-2.jpg

ইয়াছিন সালাম :

‍পডছিলাম বাংলাদেশের প্রধান প্রথাবিরোধী লেখক হুমায়ূন আজাদের একটি বই৷ হঠাৎ চোখে পডল খুব আত্মবিশ্বাস নিয়ে কোরআন থেকে উদৃত করা তার একটি আয়াত-” তারা আপনাকে হায়েয সম্পর্কে প্রশ্ন করে, বলুন তা অশুচি৷ তাই হায়েযের সময় তোমরা স্ত্রী থেকে দূরে থাক, পবিত্র না হওয়া পর্যন্ত নিকটে যাবে না৷ সূরা বাকারাহ:২২২৷”
এখানে উনি বুঝাতে চেয়েছেন হায়েয অবস্থায় নারীকে সব ধরণের সাহায্য সহযোগীতা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে! আমি চিন্তা করলাম আরে তাইতো!তাৎক্ষণিক বই পডা বন্ধ করে কোরআনের বাংলা অনুবাদ নিয়ে বসে পডলাম৷ খুলে দেখি হুবহু তাই লিখা আছে! অনুবাদ পডে সন্তুষ্ট হতে পারলাম না, তাই চট জলদি খুজে বের করলাম কোরআনের একটা তাফসীর৷ আর মনে মনে চিন্তা করছিলাম, যে আল্লাহ নারীদের এত আকাশচুম্বী মর্যাদা দিয়েছেন সেই সুমহান আল্লাহ এরকম অমানবিক কিছুতেই হতে পারেন না৷ ব্যাখ্যা খুলে দেখি আমার চিন্তাই সঠিক৷ হায়েযের সময় সহবাস না করার প্রতি জোর দেওয়ার জন্যই কথাটি এভাবে বলা হয়েছে৷ হুমায়ূন আজাদ জ্ঞানী বটে, কিন্তু আল্লাহর উচ্চমানের ব্যাকরণ ভিত্তিক এই পবিত্র বইটি বুঝার ক্ষমতা তার হয়ে উঠেনি! হয়তো তার দিলে আল্লাহ মোহর মেরে দিয়েছেন৷ সমালোচনার ইচ্ছা থাকলে সবকিছু নিয়ে করা যায়৷ তাই বিভ্রান্তি থেকে দূরে থাকার আহ্বান করছি সবাইকে৷ সবশেষে সকলের প্রতি অনুরোধ থাকবে, সময় এবং অবস্থাভেদে একটি শব্দের একাধিক অর্থ থাকে, তাই সবসময় মূল অনুবাদ পডে বিশেষ করে কোরআন এবং হাদীসকে মূল্যায়ন করবেন না৷৷

Top