মাতারবাড়ী বিধ্বস্ত সড়ক মেরামতের কাজ পরিদর্শন করেন ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ

received_582844045450759.jpeg

অাবু বক্কর ছিদ্দিক,মহেশখালী:

মহেশখালী চালিয়াতলী টু মাতারবাড়ী সংযোগ সড়কটি সম্প্রতি বর্ষায় ভারী বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়ে সড়কের বিভিন্ন অংশে ভাঙ্গন সৃষ্টি হলে উক্ত সড়কে যানচলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে । ফলে সড়কটিতে যাতায়াতকারী দেশের সর্ববৃহৎ কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পের ভিবিন্ন যানবাহন ও মাতারবাড়ী – ধলঘাটার দেড় লক্ষ মানুষের এক মাত্র যোগাযোগের মাধ্যম হওয়ায় চরম বিপাকে পড়ে যায় তারা । কয়লা বিদ্যুৎ এলাকা সহ উক্ত ইউনিয়ন দু’টির নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামাল সড়ক পথে অানা নেওয়ার জন্যও বিষণ দায় হয়ে পড়ে । শুধু তাই নয় , উক্ত সড়ক দিয়ে অাসা অনেক গাড়ী খালের মধ্যে পড়ে লোকজনের অাহত হওয়ার খবরটিও পাওয়া যায় । এমতবস্থায় মাতারবাড়ীর স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ সড়কটি মেরামতের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য অালহাজ্ব অাশেক উল্লাহ রফিক সহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিকট জরুরী বরাদ্দ দিয়ে সড়কটি মেরামতের অাবেদন জানান । চেয়ারম্যানের অাবেদনের প্রেক্ষিতে স্থানীয় সংসদ সদস্যের মাধ্যমে সড়কটি জরুরী মেরামতের বরাদ্দ দেয় এলজিইডি । কিন্তু এলজিইডি’র বরাদ্দকৃত অর্থ গুলো এখনো হাতে না পেলেও জেলা প্রশাসন ও অাশেক উল্লাহ রফিক এমপি’র নির্দেশ ক্রমে চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র নিজস্ব অর্থায়নে মাতারবাড়ী সংযোগ সড়কটি মেরামতের কাজ শুরু করেন । এ সড়কটি মেরামতের কাজ সকাল বিকাল গিয়ে তদারকি করছেন চেয়ারম্যান মোহাম্মদ উল্লাহ নিজেই । সড়কের পাশে গাছের বল্ধি স্থাপন করে প্লেন-সিট দিয়ে মাটি ভরাট করা হচ্ছে , যাতে সহজে মাটি সরে যেতে না পারে এ জন্য গাছের খুটি স্থাপন করে প্লেন-সিট ব্যবহার করা হচ্ছে বলে জানান চেয়ারম্যান । মাতারবাড়ীর ইউপি’র প্যানেল চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান , ইউপি সদস্য অাব্দুর রউফ ও অালহাজ্ব রিয়াজ উদ্দিন সার্বক্ষণিক চেয়ারম্যানের সাথে থেকে সড়ক মেরামতের কাজ তদারকি করে যাচ্ছেন । মাতারবাড়ী সংযোগ সড়কটি বর্তমানে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক হওয়ায় দিন রাত হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করতে থাকে , এবং কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে জাইকার কর্মকর্তা , প্রকৌশলী সহ দেশী বিদেশী শ্রমিক উক্ত সড়ক দিয়ে যাতায়াত করায় ফলে সড়কটি এখন উপজেলার এক মাত্র গুরুত্বপূর্ণ ব্যাস্ততম সড়কে পরিনত হয়েছে । সম্প্রতি গত বছর এলজিইডি কর্মকর্তা ও জেলা উপজেলার প্রকৌশলী এসে মাতারবাড়ীর চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যের নিয়ে দক্ষিণ রাজঘাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক উন্মোক্ত অালোচনা সভায় জানিয়ে ছিল ৩৬ কোটি টাকার জাইকার অর্থায়নে এবং এলজিইডি মন্ত্রণালয়ের অধীনে চালিয়াতলী টু মাতারবাড়ী দক্ষিণ রাজঘাট পর্যন্ত দৃষ্টিনন্দন সড়ক নির্মাণ করার অাশ্বাস দিলেও তা এখনো বাস্তবায়ন না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মাতারবাড়ীবাসি । চলতি বর্ষায় প্রতি জোয়ারের পানিতে সড়কটি প্লাবিত হওয়ায় ভিবিন্ন অংশে ছোট বড় গর্ত অার সড়কের পাশের মাটি সরে গিয়ে যানচলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়লে স্থানীয় চেয়ারম্যানের অান্তরিকতায় এবং জেলা প্রশাসন ও মাননীয় এমপি মহোদয়ের বিশেষ দৃষ্টিতে এলজিইডি থেকে জরুরী বরাদ্দে সড়কটি মেরামতের দায়িত্ব দেওয়া হয় স্থানীয় চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ কে । তাৎক্ষণিক টাকা পেমেন্ট না হলেও স্থানীয় এমপি ও জেলা প্রশাসনের নির্দেশে চেয়ারম্যানের নিজস্ব অর্থায়নে সড়ক মেরামতের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে । তবে সড়ক মেরামতের কাজ চললেও শংকা কাটছে না দ্বীপবাসির । তারা বলেন সড়ক মেরামত হলেও জোয়ারের পানি থেকে অাদো কি মাতারবাড়ীর এ সড়কটি রক্ষা পাবে ? । তার পরেও ভাঙ্গা সড়কটি মেরামত হলে অন্ততপক্ষে দুর্ভোগের কবল থেকে রক্ষা পাবে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্পে যাতায়াতকারী সহ দুই ইউনিয়নের দেড় লক্ষ মানুষ , এমনটি জানালেন স্থানীয় সচেতন মহল ।

Top