জামালগঞ্জে আরডিআরএস-বাংলাদেশ ২১৩টি শিখন স্কুল বন্ধ।সাড়ে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ অন্ধকার।

FB_IMG_1533759733472.jpg

জামালগঞ্জ(সুনামগঞ্জ)প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নে ২১৩টি আশার আলো শিখন কেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।এতে করে উপজেলার সাড়ে ৬ হাজার শিক্ষার্থীর লেখাপড়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

জানাযায়,জামালগঞ্জে গত বছরের অাগষ্ট মাস থেকে সেইভ দ্যা সিল্ডেন এর সহযোগিতায় আরডিআরএস-বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সেকেন্ড চান্স এডুকেশন প্রোগ্রাম চালু করে।জামালগঞ্জ উপজেলায় ২১৩ টি আশার আলো শিখন কেন্দ্রের মাধ্যমে সাড়ে ৬ হাজার ঝড়েপড়া শিক্ষার্থীদের অন্তভূক্ত করা হয়।এসব শিক্ষার্থীরা ইতিমধ্যে প্রথম শ্রেণীতে ভর্তি হয়ে বার্ষিক পরীক্ষার মাধ্যমে পাস করে দ্বীতৃয় শ্রেণীতে উত্তোলণ হয়েছে।মাত্র নয় মাসের মাথায় গত ১লা আগষ্ট/১৮ইং আশার আলো শিখন স্কুলগুলো কতৃপক্ষের মৌখিক নির্দেশে মধ্যেপথে বন্ধ করে দেওয়ায় চলমান প্রাথমিক শিক্ষা থেকে ঝড়েপড়া ৮-১৪ বছর বয়সী এসব শিক্ষার্থীদের জীবনে অন্ধকার নেমে এসেছে।
আরডিআরএস-বাংলাদেশ প্রতিটি শিখন কেন্দ্রে ১জন করে শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে নিয়মিত পাঠদান করালে প্রকল্প বন্ধ হওয়ায় এসব শিক্ষকেরা বেকার হয়ে পড়েছেন।শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন নিয়ে শঙ্কিত রয়েছেন সংশিষ্ট শিক্ষক ও অভিবাবক মহল।
এব্যাপারে গত ৮ই আগষ্ট সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবরে শিক্ষকদের পক্ষে আরডিআরএস-বাংলাদেশ পারিচালিত সেকেন্ড চান্স এডুকেশন প্রোগ্রাম পুনরায় চালু করার জন্য আবেদন করা হয়েছে।

Top