দোয়ারায় ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ মা:‘বিচার চাইনা, মাইর-ধইর থাইক্কা রেহাই পাইতাম চাই’

38542094_879712072215330_4516191006898520064_n.jpg

সুনামগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি ::
মার্জিয়া খাতুন (৭০) দোয়ারাবাজার উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের পেকপাড়া গ্রামের মৃত তাজিম উদ্দিনের স্ত্রী। বারো বছর আগে স্বামীকে হারিয়েছেন। স্বামী হারানোর পর ৩ সন্তানের জননী মার্জিয়া খাতুনের (৭০) ঠাঁই হয়নি সন্তানদের কাছে। বখে যাওয়া ছেলেদের নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। বাধ্য হয়েই তিনি শনিবার দুপুরে দোয়ারাবাজার থানায় এসেছিলেন এসব নির্যাতনের প্রতিকার চাইতে।
দোয়ারাবাজার থানায় ওসি’র রুমে ঢুকেই মার্জিয়া খাতুন কান্নায় ভেঙে পড়েন। বলতে থাকেন, আমি ফুতের (ছেলের) বিচার চাইনা। মাইর ধইর থাইক্কা রেহাই পাইতাম চাই। স্যার আমারে বাঁচাইন।
অভিযোগ থেকে জানাযায়, ক’দিন পরপর মাদকাসক্ত ছেলে ইউসুফ আলীর মারপিটের কারণে মেয়ের বাড়িতে আশ্রয় নেন মার্জিয়া খাতুন। সেখানে কিছুদিন থেকে নিজের বাড়িতে ফিরে আসলে আবারো শুরু হয় নির্যাতন। বিচারের জন্য মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও কোনো প্রতিকার পাননি। গ্রাম পঞ্চায়েতের বিচার সালিশ উপেক্ষা করে মায়ের উপর নির্যাতনের চালায় পুত্র ইউসুফ আলী। কিছুদিন আগে ছেলের নির্যাতনের শিকার হলে গ্রাম পঞ্চায়েত মার্জিয়া খাতুনকে নিয়ে শনিবার দুপুরে দোয়ারাবাজার থানায় আসেন। থানায় এসে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন। আর বারবার বলতে থাকেন- মাইর-ধইর থাইক্কা রেহাই পাইতাম চাই।
দোয়ারাবাজার থানার ওসি সুশীল রঞ্জন দাস বলেন, মৌখিক অভিযোগ রেকর্ড করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Top