ঠাকুরগাঁওয়ে পীরগঞ্জ উপজেলার এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১২ ইউপি সদস্যের অনাস্থা।

IMG_20180807_204049.jpg

ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধিঃ
ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার ১১নং বৈরচুনা ইউপি চেয়ারম্যান জালাল উদ্দীনের বিরুদ্ধে ১২ ইউপি সদস্যের অনাস্থার অভিযোগ করেছে। ইউপি সদস্যদের না জানিয়ে একক ভাবে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা ও মাসিক ভাতার টাকা আত্মসাত করার অভিযোগ এনে ঠাকরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার বৈরচুনা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব গ্রহন করেছেন পরিষদের ১২ জন নির্বাচিত সদস্য। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট আবেদন করেছেন পরিষদের সদস্যরা। উপজেলা পরিষদে দায়ের করা ১২ জন সদস্য স্বাক্ষরিত আবেদনে উল্লেখ করা হয়, বৈরচুনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জালাল উদ্দীন পরিষদের সদস্যদের না জানিয়েই একক ভাবে ইউনিয়ন পরিষদের সকল কাজকর্ম পরিচালনা করে আসছেন। এমন কি ২০১৬ সালের আগষ্ট মাসে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত সদস্যদের মাসিক সম্মানি ভাতা প্রদান না করে আত্মসাত করেছেন। বাধ্য হয়েই পরিষদের ৯ জন সাধারণ এবং ৩ জন সংরক্ষিত নারি সদস্য চেয়ারম্যনের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব গ্রহন করেছেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।এ বিষয়ে ইউপি সদস্য অনিসুর রহমান বলেন, চেয়ারম্যান একক ক্ষমতা বলে সব কিছু করছেন। কোন সদস্যকেই জানাচ্ছেন না। আমরা একাধিকবার তাকে (চেয়ারম্যান) বলেছি। তিনি কোন ব্যবস্থা নেননি। অভিযোগের বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান জালাল উদ্দীন বলেন, একক ভাবে পরিষদ চালানোর অভিযোগ সত্য নয়। সোলার ভাগ বন্টনে একমত হতে না পারায় তারা অভিযোগ দিতে পারে। তাছাড়া পরিষদের আয় না থাকলে সদস্যদের ভাতা দিব কিভাবে। ভাতার টাকা আত্মসাতের প্রশ্নই উঠে না।
অনাস্থা প্রস্তাব বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ বলেন, দরখাস্ত পেয়েছি, বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Top