বহিরাগত নারী নিয়ে রাতযাপন ও মদের আসর, মধ্যরাতে প্রানিসম্পদ ডরমেটরীতে পুলিশ

received_308912299860026.jpeg

এম শাহীন আলম,খাগড়াছড়িঃ

জেলারর গুইমারা প্রানি সম্পদ অফিস ক্লার্ক মোঃ নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে নিজ অফিসের ঢরমেটরীতে নারী কেলেংকারী ও বহিরাগত লোকদের নিয়ে মদের আসর বসানোর অভিযোগ উঠেছে।

গত রবিবার মধ্য রাতে প্রানিসম্পদ অফিস কক্ষে নারী সহ বহিরাগত লোকজন নিয়ে মদের আসর বসেছে স্থানীদের এমন অভিযোগের ভিত্তিতে উর্ধতন কর্মকর্তার নির্দেশে গুইমারা থানা পুলিশ অভিযান চালিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার সন্ধ্যায় গুইমারা প্রানিসম্পদ অফিসের ক্লার্ক নাসির উদ্দিন নিজের মোটর সাইকেলে করে ২০-২৫ বছরের একটি মেয়েকে নিয়ে অফিসের উপরের তলায় ব্যাচেলর কোয়াটারে নিয়ে যায়। অফিস টাইমের আগে পরে সরকারী অফিসে জনসাধারণ প্রবেশ অধিকার নিষিদ্ধ থাকলেও সন্ধ্যায় যুবতী নারী ও বহিরাগত বন্ধুবান্ধব নিয়ে আসর বসাতে ভুল করেননি নাসির উদ্দিন।

বিষয়টি এলাকা বাসি স্থানীয় সমাজপ্রতিনিধিদের জানালে তারা সাংবাদিক, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশকে অবগত করলে পুলিশ রাত ২ঘটিকায় স্থানীয় সমাজপতি ফজল আহম্মদ, তৈয়ব আলী, আনিসুল হক সহ সাংবাদিকদের নিয়ে প্রানিসম্পদ অফিসে গিয়ে তল্লাসি চালাতে গেলে চতুর নাসির উদ্দিন গেইটের এবং অফিস কক্ষের তালা না খুলে কক্ষের ভিতর থেকে পুলিশকে সহযোগিতা না করে চোর ডাকাত বলে হুমকি প্রদান করে।

বিধি মোতাবেক সরকারী প্রতিষ্ঠানের তালা ভাঙ্গার বিধান না থাকায় পুলিশ স্থানীয়দের নিয়ে ঘন্টাব্যাপি শত চেষ্টা করেও তার সহযোগীতা না পেয়ে অভিযান পরিচালনায় ব্যার্থ হয়।

রাত ৩ ঘটিকায় যে যার গন্তব্যস্থলে চলে যাওয়ার পর কৌশলে মেয়েটিকে প্রানিসম্পদ অফিস থেকে বের করে দিলেও বহিরাগত উপজাতী যুবককে বের করতে পারেনি সে।

এবিষয়ে জানতে চাইলে জেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা জানান, এর আগেও অভিযুক্ত নাসিরের বিরুদ্ধে আমাদের নিকট বেশকিছু অভিযোগ এসেছে, তদন্ত পূর্বক তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

গুইমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি গিয়াস উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Top