বর্ষা এলে শান্তি নেই তিস্তা পাড়ের হতভাগা মানুষের

IMG_20180705_180603.jpg

মোঃ মোশারফ হোসেন, হাতীবান্ধা :
(লালমনিরহাট) প্রতিনিধিঃ ০২ আগষ্ট (বৃহস্পতিবার) ভারতের পাহাড়ী ঢলে উজান থেকে নেমে আসা ও ভারি বৃষ্টির পানিতে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় ২ দিন ধরে আবারোও বন্যা দেখা দিয়েছে । ভারতের গজল ডোবা ব্যারাজের অধিকাংশ গেট খুলে দেয়ায় তিস্তার পানি বৃদ্ধি পায় । তিস্তায় পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ব্যারাজ নিয়ন্ত্রনে রাখতে ব্যারাজের অধিকাংশ গেট খুলে দেয় দোয়ানী পানি উন্নয়ন বোর্ড ।
উজানে পানি বৃদ্ধি হওয়ায় ব্যারাজের গেট খুলে দিলে জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার সানিয়াজান, গড্ডিমারী, সিঙ্গীমারী, সির্ন্দুণা, পাটিকাপাড়া ও ডাউয়াবাড়ি ইউনিয়নে বন্যা দেখা দেয় । এতে ৬ ইউনিয়নে দুদিন ধরে প্রায় ১১ হাজার পরিবার পানি বন্দি হয়ে পরে ।
তিস্তা ব্যারাজ পানি উন্নয়ন বোর্ড দোয়ানী সুত্রে, জানাযায়, ভারতের গজল ডোবা ব্যারাজের অধিকাংশ গেট খুলে দিলে জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার তিস্তার র্তীরবর্তী এলাকায় ও উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে বন্যা দেখা দিয়েছে । বন্যা দেখা দিলে ওই এলাকার মানুষ ঘর বাড়ি ছেড়ে নিরাপদ স্থানে চলে গিয়েছে । পানি বন্দি পরিবার গুলো নিরাপদ স্থানে গেলেও এখন পর্যন্ত পানি বন্দি পরিবার গুলোর মাঝে
বিশুদ্ধ পানি ও খাবার মেলেনি ।

ব্যরাজ পানি উন্নয়ন বোর্ডের (দোয়ানী) নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল আলম চৌধুরী জানান, ভারতের গজল ডোবা ব্যারাজের অধিকাংশ জলকপাট খুলে দেয়ায় পানি গতি নিয়ন্ত্রণে তিস্তা ব্যারেজের অধিকাংশ জলকপাট খুলে দেয়া হয়েছে।

Top