স্বস্তির নিশ্বাস এলাকাবাসির; অবশেষে মাতারবাড়ী রাঙ্গাখালী খালের উপর দিয়ে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা

38223838_664405473912289_7235811384452186112_n.jpg

অাবু বক্কর ছিদ্দিক :

অনেক জল্পনা কল্পনার অবশান ঘটিয়ে অবশেষে মাতারবাড়ী রাঙ্গাখালী খালের উপর দিয়ে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করেছেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ । সম্প্রতি মাতারবাড়ীতে কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণের ফলে ইউনিয়নের চতুর্পাশে বেড়ীবাঁধ নির্মাণ করে কোল-পাওয়ার কর্তৃপক্ষ । উক্ত বেড়ীবাঁধ নির্মাণ করতে গিয়ে অাগের যে সমস্ত পানি নিষ্কাশনের স্লুইচগেট ছিল তা সম্পুর্ন বন্ধ করে দেয় কোল-পাওয়ার কর্তৃপক্ষ । এতে চলতি বর্ষা মৌসুমের বৃষ্টির পানি বের হতে না পেরে পুরো মাতারবাড়ীই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে সিমাহীন দুর্ভোগে পড়ে যায় ইউনিয়নের প্রায় বিশ হাজার নারী পুরুষ । দুর্ভোগের কবল থেকে রক্ষা করতে জরুরী ভিত্তিতে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করার জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য অালহাজ্ব অাশেক উল্লাহ রফিক , মহেশখালীর ইউএনও এবং জেলা প্রশাসক মহোদয়ের কাছে লিখিত অাবেদন করেন মাতারবাড়ীর ইউপি চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ । এদিকে জেলা প্রশাসন ও অাশেক উল্লাহ রফিক এমপি’র সহযোগীতা ও নির্দেশ ক্রমে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র উদ্যোগে অবশেষে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা হয়েছে । রাঙ্গাখালী খালের উপর ৩২ চেইন ক্যানেল কেটে ২৫ ফুট প্রস্থ অার স্বাভাবিক ভূমি থেকে ৪ হাত গভীরে পানি নিষ্কাশনের পাইপ দু’টি স্থাপন করা হচ্ছে । চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ ও স্থানীয় ৩ নং ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য অালহাজ্ব রিয়াজ উদ্দিন সার্বক্ষণিক কাজের তদারকি করে যাচ্ছেন । এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন , কোল-পাওয়ার কর্তৃক স্লুইচগেট বন্ধ রাখায় মাতারবাড়ীতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে । এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে মাতারবাড়ীর নিম্নাঞ্চলের মানুষ গুলো । বিভিন্ন দপ্তরে অাবেদনের প্রেক্ষিতে কোল-পাওয়ার কর্তৃক রাঙ্গাখালী খালের উপর একটি স্লুইচগেট নির্মাণের বরাদ্দ দিলেও বর্ষায় পানি বেড়ে যাওয়ায় কাজ করা যাচ্ছে না । অামি মাননীয় এমপি মহোদয় কে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি পাইপের মাধ্যমে জরুরী ভিত্তিতে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করার জন্য বললে কোল-পাওয়ারের জরুরী বরাদ্দকৃত অর্থের বিনিময়ে তাৎক্ষণিক কাজ শুরু করে দিই । বর্তমানে পাইপ দু’টি দিয়ে পানি বের হতে শুরু করেছে,খাল কাটা সম্পন্ন হলে জোরালো ভাবে পানি বের হতে পারবে তাতে অার মাতারবাড়ীতে জলাবদ্ধতার সমস্যা হবে না । এদিকে স্থানীয় চেয়ারম্যানের উদ্যোগে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করায় স্বস্তির নিশ্বাস পেলে সাধারন জনগন চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহ কে সাধুবাদ জানিয়েছেন ।

Top