সাতকানিয়ার ছয় ইউনিয়ন নিয়ে উত্তর সাতকানিয়া থানা স্থাপনের দাবী: সংবাদ সম্মেলন

received_2060314153992411.jpeg

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করছেন মাষ্টার মহিউদ্দিন।

শহীদুল ইসলাম বাবর:
চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার ছয় ইউনিয়ন নিয়ে উত্তর সাতকানিয়া নামে থানা স্থাপনের দাবীতে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব, জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানবন্ধনসহ সভা সমাবেশের কর্মসূচী ঘোষনা করেছে উত্তর সাতকানিয়া সম্মিলিত নাগরিক সমাজ।
বুধবার বেলা সাড়ে এগারটার সময় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। যুবলীগ নেতা ওসমান আলী ও সাংবাদিক শহীদুল ইসলাম বাবরের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কালিয়াইশ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মাষ্টার মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।উপস্থিত ছিলেন, বাজালিয়া আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান রফিক আহমদ চৌধুরী, কেওচিয়ার সভাপতি মাষ্টার মোহাম্মদ ইউনুচ,টেরী বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আহমদ হোছাইন, কালিয়াইশ ইউনিয়ন সভাপতি নুরুল হাকিম চৌধুরী, ধর্মপুরের সাধারণসম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, কেওচিয়ার সাধারণ সম্পাদক রিপন দাশ সুজন, খাগরিয়ার সাধারণ সম্পাদক রাশেদ আজগর চৌধুরী সুজা, পুরানগড়ের যুগ্ন আহবায়ক আজিজুর রহমান চৌধুরী, চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা যুবলীগ সদস্য হাছান মাহমুদ, মো. হেলাল উদ্দিন টিপু,চট্টগ্রামস্থ বাজালিয়া সমিতির সাধারণ সম্পাদক রফিক উল্লাহ চৌধুরী, তামাকুমন্ডি লেইন বনিক সমিতির যুগ্ন সম্পাদক ফারুক আজম, প্রবাসী নেতা জাহাঙ্গীর আলম, বাজালিয়া যুবলীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক মনছুরুল ইসলাম মনছুর ও যুবলীগ নেতা আনোয়ারুল ইসলাম প্রমূখ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন সাতকানিয়া উপজেলার উত্তর সাতকানিয়ার খাগরিয়া, কালিয়াইশ, কেওচিয়া, ধর্মপুর, বাজালিয়া ও পুরানগড় ইউনিয়নের দেড় লক্ষাধিক মানুষের প্রতিনিধি হয়ে আমাদের দীর্ঘ দিনের প্রানের দাবী “উত্তর সাতকানিয়া থানা বাস্তবায়নের দাবীতে আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি। আমাদের বর্তমান সাতকানিয়া উপজেলাটি ১৭টি ইউনিয়ন এবং ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। জনসংখ্যা প্রায় ছয় লক্ষাধিক। ১৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার মধ্যে ১১টি ইউনিয়নসহ পৌরসভা নিয়ে চট্টগ্রাম-১৫ সংসদীয় আসনের অর্ন্তভূক্ত। আর বাকি উত্তর সাতকানিয়ার উল্লেখিত ৬ ইউনিয়ন ও চন্দনাইশ উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন চট্টগ্রাম-১৪ সংসদীয় আসনের অর্ন্তভূক্ত বিধায় জননিরাপত্তা ও উন্নয়নের সদিচ্ছা থাকা সত্তেও আমরা উপরোক্ত ছয় ইউনিয়নের অন্তত দেড় লক্ষাধিক মানুষ সরকারের নানাবিধ উন্নয়ন ও জননিরাপত্তার ক্ষেত্রে অনেক পিছিয়ে রয়েছি। কেননা উপজেলা ও থানা সদর থেকে উপরোক্ত ইউনিয়ন সমূহের দুরত্ব কমপক্ষে ২০/৩০ কিলোমিটার হওয়ায় এত দুর থেকে উন্নয়ন কর্মকান্ড তদারক ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন অনেকটা কঠিন পর্যায়ে রয়েছে। এখানে উল্লেখ থাকে যে, শঙ্খনদী দ্বারা সাতকানিয়া ও চন্দনাইশ উপজেলাটি বিভক্ত।
শঙ্খনদীর দক্ষিণ সীমান্তে উত্তর সাতকানিয়ার উল্লেখিত ছয় ইউনিয়ন, উত্তর সীমান্তের ৯টি ইউনিয়ন নিয়ে চন্দনাইশ উপজেলা।
এখানে বিশেষ ভাবে উল্লেখ থাকে যে, এ উত্তর সাতকানিয়ায় সাতকানিয়ার ব্যবসায়ীক প্রানকেন্দ্র কেরানীহাট, বর্ডার গার্ড অব বাংলাদেশ (বিজিবি) এর একমাত্র প্রশিক্ষন সেন্টার বাইতুল ইজ্জত বর্ডার গার্ড ট্রেনিং সেন্টার, বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্র, ১০০ মেগাওয়াট পিকিং পাওয়ার প্ল্যান্ট,সড়ক ও জনপথ বিভাগের আঞ্চলিক কার্যলয়, উত্তর সাতকানিয়া জাফর আহমদ চৌধুরী ডিগ্রী কলেজ, উত্তর সাতকানিয়া আলী আহমদ প্রনাহরি উচ্চ বিদ্যালয়,রসুলাবাদ ইসলামিয়া ফাজিল (ডিগ্রী) মাদ্রাসা, ,কেরানীহাট জামেউল উলুম ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা,অলি আহমদ বীর বিক্রম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, সেরে বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়, হুসনে আজিজ ফাউন্ডেশন পরিচালিত হাসপাতাল, হেদায়েতুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসাছাড়াও বহু মাধ্যমিক বিদ্যালয়, প্রতিটি গ্রামে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ অনেক জনকল্যানমূলক প্রতিষ্ঠানের অবস্থান। থানা প্রশাসন এ বিশাল জনগোষ্টির জননিরাপত্তা বিধানে হিমশিম খাচ্ছে এবং সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচী বাস্তবায়নে বৈষম্য পরিলক্ষিত হচ্ছে। জননিরাপত্তা বিঘিœত হয় এমন ঘটনা নিয়ন্ত্রনে আনতে বার বার ব্যর্থ হয় প্রশাসন।
এহেন পরিস্থিতিতে উত্তর সাতকানিয়ার উপরোক্ত ছয় ইউনিয়ন নিয়ে “উত্তর সাতকানিয়া” নামে নতুন থানা স্থাপন অত্যান্ত জরুরী। উত্তর সাতকানিয়ার ৬ ইউনিয়ন যথাক্রমে খাগরিয়া, কালিয়াইশ, কেওচিয়া, ধর্মপুর, বাজালিয়া ও পুরানগড় ইউনিয়ন নিয়ে “উত্তর সাতকানিয়া থানা” নামে নতুন থানা স্থাপনের দাবীতে ইতিমধ্যে উত্তর সাতকানিয়া সম্মিলিত নাগরিক সমাজের ব্যনারে বান্দরবান পার্বত্য জেলার সংযোগ স্থল চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ের কেরানীহাটে হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে সভা-সমাবেশ ও স্বতস্পূর্ত মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। জনদাবীর এ মানববন্ধন কর্মসূচীতে উপস্থিত হয়ে এ দাবীর প্রতি ঐক্যমত পোষন করেছেন চট্টগ্রাম-১৪ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ নজরুল ইসলাম চৌধুরী ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন চৌধুরী। এছাড়াও প্রতিটি ইউনিয়নের বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষ আমাদের সাথে রয়েছেন। এ দাবী আদায়ের জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কার্যলয়ের মূখ্য সচিব, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ও মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের সচিব বরাবরে লিখিত আবেদন করেছি।
এছাড়াও আমাদের এ দাবী আদায়ের লক্ষ্যে ০৪ আগষ্ট শনিবার বিকাল ৪টার সময় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন, ০৫ আগষ্ট রবিবার বেলা ১১ টার সময় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন, ০৮ আগষ্ট প্রতিটি (উত্তর সাতকানিয়ার ছয়) ইউনিয়নে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ
পরবর্তিতে একই দাবীতে উপরোক্ত ছয় ইউনিয়নে সমাবেশ,মিছিলসহ শান্তিপূর্ন ও নিয়মতান্ত্রিক পন্থায় দাবী আদায়ের লক্ষ্যে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

Top