রাজশাহীতে বিএনপির বুলবুলের নির্বাচন প্রত্যাখ্যান; আওয়ামীলীগের লিটনের বিজয়

38085258_529816124121628_1191564648218886144_n.jpg

এফ আর রাশেল,রাজশাহী :
রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। সোমবার (৩০ জুলাই) রাত ৮টার দিকে ঘোষণা করা হয় এ ফল।
রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ১৩৮টি কেন্দ্রের সব ক’টির ফলাফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ প্রার্থী খায়রুজ্জামান লিটন পেয়েছেন ১ লাখ ৬৬ হাজার ৩৯৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল পেয়েছেন ৭৮ হাজার ৪৯২ ভোট।
রাজশাহী সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে প্রত্যাখ্যান করেছেন বিএনপি-সমর্থিত প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। রাজশাহীর সঙ্গে সঙ্গে সিলেট ও বরিশালেও নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন তিনি। আজ সোমবার সন্ধ্যায় রাজশাহী বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত নির্বাচনোত্তর সংবাদ সম্মেলনে মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এ দাবি জানান।
মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, নির্বাচন কমিশন ও রাজশাহীর রিটার্নিং কর্মকর্তাকে পদত্যাগ করতে হবে। নতুন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সেনাবাহিনীকে রাখতে হবে।
এর আগে আজকের নির্বাচনের বিভিন্ন অনিয়মের কথা সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন বুলবুল। তিনি বলেন, ‘পুলিশ, বিশেষ করে রাজশাহী শহরের বাইরে থেকে আসা পুলিশ আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে সহায়তায় বিশেষভাবে কাজ করেছে।’
সংবাদ সম্মেলনে রাজশাহী সিটির সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু ও বিএনপির অন্য স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
আজ সোমবার সকাল আটটা থেকে বেলা চারটা পর্যন্ত রাজশাহী, সিলেট ও বরিশাল সিটিতে ভোট নেওয়া হয়। রাজশাহী সিটি করপোরেশনে মোট ১৩৮টি কেন্দ্র রয়েছে। এর সব কটিরই অনানুষ্ঠানিক ফলাফল পাওয়া গেছে। প্রাপ্ত ফলাফলে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৩৯৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান (লিটন)। অন্যদিকে বিএনপির মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল পেয়েছেন ৭৮ হাজার ৪৯২ ভোট।

Top