পরিত্যক্ত ভবনে প্রসূতি সেবা, চিকিৎসক থেকেও নেই! মাতৃত্বকালীন ছুটিতে থেকেও সেবা দিচ্ছেন ভিজিটর

15-0718.jpg


নজরুল ইসলাম, কুতুবদিয়া:

উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের জনগনের সুবিধার্থে স্থাপিত স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি বিবর্ণ ও পরিত্যাক্ত ভবনে পরিণত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও অযন্তে কেন্দ্রটির এমন অবস্থা হয়েছে বলে জানালেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এই কেন্দ্রটিতে পরির্দশিকা হিসেবে কর্মরত আছেন রেবেকা রেবেকা সোলতানা। তিনিও বিগত তিন মাস ধরে মাতৃত্বকালীন ৬ মাসের ছুটিতে রয়েছেন। অফিসের অন্যান্য কর্মচারীরা ডিপোটেশনে উপজেলা অফিসে কাজ করায় ছুটিতে থাকার পরেও তা ভোগ করতে পারছেন না বলে জানালেন রেবেকা সোলতানা। তিনি জানান, বিগত ২০১৩ সন হতে একটানা এই অফিসে কর্মরত আছেন তিনি। প্রতি মাসে ১৮-২০ জন প্রসূতির ডেলিভারী করা হয় এ কেন্দ্রে। কর্তৃপক্ষ পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রটি বিগত ৮মাস পূর্বে পরিত্যক্ত ঘোষনা করলেও বিকল্প কোন ভবন না থাকায় এ ভবনে ঝুঁকি নিয়ে প্রসূতি সেবা দিতে হচ্ছে তাকে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, অত্র অফিসে ডাক্তারসহ ৬ টি পদ রয়েছে। তার মধ্যে একজন ডাক্তার, একজন চেকমো, একজন ভিজিটর, একজন আয়া, একজন নাইট গার্ড ও একজন অফিস সহায়ক । এসব পদের মধ্যে ভিজিটর ও আয়া ছাড়া বাকী সবগুলো পদ শূণ্য রয়েছে। একজন চিকিৎসক এই কেন্দ্রে নিয়িমিত আসার কথা থাকলেও তিনি আসেনা বলে জানালেন স্থানীয়রা। ক্লিনিকটির প্রতি সুনজর দিতে সংশ্লীষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আকুল আবেদন জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।

Top