শিক্ষকদের সত্যিকারের মানুষ গড়ার কারিগর হতে হবেঃ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো:নুরুজ্জামান

received_1603047076490671.jpeg

এম এ মোতালিব ভুঁইয়া:
শিক্ষকদের সত্যি কারের মানুষ গড়ার কারিগর হতে হবে বলেছেন অতিরিক্ত প্রশাসক মো:নুরুজ্জামান
বৃহস্পতিবার ১২জুলাই দুপুরে দোয়ারাবাজার উপজেলা হলরুমে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস আয়োজিত প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে মতবিনিময় সভায় প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নের লক্ষে প্রধান শিক্ষকদের সাথে মত বিনিময়কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো:নুরুজ্জামান এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে প্রাথমিক স্কুলে শিক্ষার মান এমন অবস্থা যা খুবই দুঃখজনক।আপনারা শিক্ষকগন হলেন মানুষ গড়ার কারিগর। সেই কারিগর হিসেবে কতটুকু দায়িত্ব পালন করছেন তা যদি একটু নিজেই ভাবেন বুঝতে পারবেন। তিনি বলেন, নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত করবেন ছাত্র ছাত্রীদের। তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশ্য করে বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরকে শুধু পড়ালেখায় শিক্ষা দিলে হবে না, তাদেরকে নীতি ও নৈতিকতা শিখাতে হবে। কোমলমতি শিক্ষার্থীরা আগামী দিনে হবে দেশের কর্ণধার। তাদেরকে নিজের সন্তান মনে করে আন্তরিকভাবে পাঠদান করলে প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়ন ঘটবে। একই সাথে শিক্ষার ক্ষেত্রে দেশ অনেক দূর এগিয়ে যাবে। এ জন্য প্রত্যেক শিক্ষক -ম্যানেজিং কমিটি ও অভিভাবকদের আন্তরিক হতে হবে। উপজেলা শিক্ষা অফিসের উদ্যোগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী মহুয়া মমতাজ এর সভাপতিত্বে ও উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার অনুকুল চন্দ্র দাসের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায়

প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি)মো. নুরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ ইদ্রিস আলী বীরপ্রতিক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার পঞ্চানন বালা, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার একে.এম ফজলুল হক,

সহকারী শিক্ষা অফিসার আবু রায়হান, নুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমান, বালিছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ার হোসেন, টেংরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সালেহা বেগম, রঞ্জিত কুমার দাস প্রমুখ।

পরে চলতি দায়িত্বে বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে বরণ করা হয়।উপস্থিত ছিলেন প্রধান শিক্ষক কাজী শাহজাহান,আবুল কাশেম,সুপ্রভা রানী কর,জোতিময় রায়,ফয়সাল আহমেদ, তোফায়েল আহমেদ,আব্দুর রহিম,আব্দুল মান্নান,আব্দুর রশিদ,আবু সালেহ আহমেদ,ফারুক আহমেদ,ইমাম হোসেন,রফিকুল ইসলাম,মাখন লাল চন্দ্র,লুৎফুন্নাহার,ইয়াকুব আলী,ফকর উদ্দিন,রণজিৎ দেব,শ্যামল চক্রবতী,জিল্লুর রহমান,কাজী সাজেদা আক্তার,আব্দুস সহিদ,মনিরুজ্জামান,হযরত আলী ভুঁইয়া, অঞ্জলি রানী দে,মাহমুদা বেগম,তাজুল ইসলাম সহ উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক/শিক্ষিকা বৃন্দ।

Top