চেক প্রতারণার মামলায় এক ব্যক্তির দেড় বছর জেল ও এক কোটি ৪লক্ষ টাকা জরিমানা

images-8.jpg

প্রেস বিজ্ঞপ্তি :
চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানাধীন আলকরণ এলাকার রনজিত কুমার শীল এর পুত্র টিটু কুমার শীল (৪৫) সিএমপি’র চান্দগাঁও থানাধীন আব্দুল হামিদের পাওনা টাকা পরিশোধের জন্য মামলার বাদীকে আসামীর পরিচালনাধীন ও মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান মেসার্স জেবিএল এন্টারপ্রাইজ এর নামীয় হিসাবের বিপরীতে যথাক্রমে ১কোটি ৪লক্ষ টাকার ২টি চেক প্রদান করেন। আসামীর প্রদত্ত চেক তার কথামত বাদীর নামীয় ব্যাংক হিসাবে উপস্থাপন করলে চেক ২টি ডিজঅনার হয়ে ফেরত আসে। মামলার বাদী এই আসামীর বিরুদ্ধে বিগত ০১/১১/২০১৬ইং তারিখে এনআই এ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারায় বিজ্ঞ চীফ মেট্টোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ২টি মামলা দায়ের করেন। পরবতীতে মামলা বিচার নিষ্পত্তির জন্য বিজ্ঞ ১ম যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ এর আদালতে বদলি হয়। বিজ্ঞ আদালত এন.আইএ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারার অপরাধে আসামীর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেন। চার্জ গঠনের পর বাদীর সাক্ষীর জেরা জবানবন্দি গ্রহণ ও যুক্তি তর্ক উপস্থাপন শেষে এ ২টি মামলায় আসামীর বিরুদ্ধে বাদীর আনীত অভিযোগ সন্দেহাতিত ভাবে প্রমানিত হওয়ায় আসামীকে ২মামলায় যথাক্রমে এক বছর ও ৬মাস করে মোট দেড় বছরের কারাদন্ড এবং ২টি চেকের সমপরিমাণ এক কোটি ৪ লক্ষ টাকা অর্থদন্ডের আদেশ দেন। উল্লেখ্য, আসামী জামিনে গিয়ে পলাতক থাকায় গ্রেফতার হওয়ার দিন থেকে সাজা কার্যকর হবে। বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন- এডভোকেট এ.এম জিয়া হাবীব আহসান, এডভোকেট এ.এইচ.এম জসিম উদ্দিন, এডভোকেট দেওয়ান ফিরোজ আহমদ, এডভোকেট প্রদীপ আইচ দীপু, এডভোকেট সাইফুদ্দিন খালেদ, এডভোকেট মোঃ হাসান আলী প্রমুখ। রাষ্ট্র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন বিজ্ঞ সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট রাম প্রসাদ ভট্টাচার্য্য।

Top