চিরিরবন্দরে সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত গ্রামীণ জনপদ

solar-pic-2.jpg

মো: আব্দুস সালাম-চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) থেকে :
বিদ্যুতের উপর চাপ কমাতে দিনাজপুর চিরিরবন্দর উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় লাগানো হয়েছে সৌরবিদ্যুৎ চালিত সড়কবাতি। দৃষ্টিনন্দন সোলার সিস্টেম গুলো শোভা পাচ্ছে এলাকার গ্রামীণ জনপদ সড়কে, বাজারের মোড়ে ও গুরুত্বপূর্ণ জায়গায়। রাতের বেলায় এসব সিস্টেমের সড়কবাতির আলোয় আলোকিত করছে উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকার জনপদ। সৌরবিদ্যুতের আলোয় চুরি ছিনতাই ও আগের তুলনায় অনেক কমে গেছে বলে এলাকাবাসী জানান। চিরিরবন্দর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা যায়, দূযোর্গ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসূচীর আওতায় সৌরবিদ্যুতের এ সড়কবাতি বসানো হয়। উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে প্রতিটি বাজার, হাসপাতাল, গুরুত্বপূর্ণ স্থান, বিভিন্ন রাস্তার মোড়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সামনে, ২ শত ৫১টি পয়েন্টে স্টিলের বিশেষ ধরনের পোলে এ সোলার বাতি বসানো হয়। ত্রাণ ও দূযোর্গ মন্ত্রণালয় কর্তৃক মনোনিত ইডকোল এর পি ও কর্তৃক ২০১৭-২০১৮অর্থ বছরে দুই কিস্তিতে ২ কোটি ৫১ লাখ ৭৩ হাজার টাকা বাস্তবায়ন করেন। চলতি অর্থ বছরের এরকম প্রায় ৬শতটি পয়েন্টে সোলার বাতি বসানোর স্থান চিহ্নিত করা হয় যা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জানান। চিরিরবন্দর উপজেলার বাসিন্দারা জানান, রাতের বেলায় বিদ্যুৎ না থাকলে আতঙ্ক নিয়ে চলাফেরা করতে হতো। এছাড়াও অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাসাবাড়িতে চুরির ঘটনা ঘটত। সৌর সোলার সিস্টেমের সড়কগুলো বাতি লাগানোর ফলে এখন আর আমাদের আতঙ্ক নিয়ে চলাফেরা করতে হয় না। চিরিরবন্দর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো: মনোয়ারুল ইসলাম বলেন, মাননীয় পরাষ্ট্র মন্ত্রীর পরামর্শক্রমে টিআর কাবিটা প্রকল্পের আওতায় উপজেলারপ্রায় ৬ শত টির অ ধকি পয়েন্টে সৌরবিদ্যুতের স্টিট লাইট ইতোমধ্যে সুন্দরভাবে লাগানো সম্পন্ন হয়েছে।২০১৭-২০১৮ র্অথবছরে উপজেলার প্রতিটি বাজার, গুরুত্বপূর্ণ স্থান, বিভিন্ন রাস্তার মোড়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সামনে সহ ২ শত ৫১ টি পয়েন্টে স্টিলের পোলে বিশেষ ধরনের সৌর বদিুৎ সড়ক এ বাতি বসানো হয়। পুনট্রি-অমরপুর-আব্দুলপুর ইউনিয়নে সড়কে অটোভ্যান চালক জানান, এ ইউনিয়নের বিভিন্ন সড়কের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সোলার প্যানেল বসার কারনে এখন ছিনতাই ডাকাতির পরিমান কমে গেছে। আগে ছিনতাইয়ের ভয়ে সন্ধ্যা লাগলে লোকজন বাড়ীতে চলে যেত। তাই আমাদের রাতে অটোভ্যান চালানো বন্ধ থাকত। এখন আমরা নিরাপদে অটোভ্যান চালাই। সড়কে আলো থাকায় এখন আর ভয় পাই না। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিমুদ্দিন গোলাপ জানান, ১২ টি ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ন সড়ক ও গুরুত্বপূর্ন স্থানে সোলার প্যানেল বসার কারনে এখন চুরি ছিনতাই ডাকাতির পরিমান কমে গেছে। ১০নং পুনট্রি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো: নুর-এ-কামাল বলেন, প্রধানমšী¿ শেখ হাসিনা মানুষের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেয়ার অঙ্গিকার করেছিলেন। তাঁর অঙ্গিকার বাস্তবায়নের জন্যই এ প্রকল্পের আওতায় সড়ক বাতি স্থাপনে বিশেষ উদ্যোগে শুধু আমার ইউনিয়নে নয় উপজেলার বিভিন্ন গ্রামীণ সড়ক ও গুরুত্বপূর্ন স্থানে সৌর বিদ্যুতের বাতি বসানো হয়েছে। এতে রাতে আধারে সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত নিরাপদে মানুষ চলাচল করতে পারছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: গোলাম রব্বানী জানান, উপজেলার ১২ টি ইউনিয়ন যেখানে মানুষের চলাচল রয়েছে এ রকম বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন স্থানে প্রায় কয়েক শতাধিক পয়েন্টে স্টিলের বিশেষ ধরনের সোলার পোলে সৌর বিদ্যুতের এ সড়ক বাতি বসানো হয়েছে। বর্তমানে প্রকল্পটি আরো বর্ধিত করার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

Top