অতি বৃষ্টির কারণে পাচলাইশের হাজী চাঁন্দ মিয়া সওদাগর উচ্চ বিদ্যালয়ের অর্ধ-বার্ষিক পরিক্ষা বর্জন

IMG_20180703_122429.jpg

আকতার কামাল মহসিন,চট্টগ্রাম :
চট্টগ্রামে সোমবার রাত ১০ টা থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ভারি বৃষ্টিপাত হয়েছে। এতে চট্টগ্রাম ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও হাজী চান্দ মিয়া সওদাগর উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিক্ষার্থী বিপাকে পড়ছে। এতে নগরীর বেশিরভাগ এলাকায় দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। কোথাও ছিল হাঁটু সমান পানি; কোথাও জমে ছিল কোমর সমান। সব মিলিয়ে নগরীর শমসেরপাড়া এলাকা পানিতে থৈ থৈ করেছে। এতে চরম ভোগান্তির শিকার হন নগরীর স্কুল কলেজে পরিক্ষার্থীরা । বিশেষ করে পেশাজীবী ও শিক্ষার্থীদের দুর্ভোগ ছিল সীমাহীন।
জলাবদ্ধতার কারণে সড়কজুড়ে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট। খানাখন্দে ভরা বেশিরভাগ রাস্তা ডুবে থাকায় পথে পথে বিকল হয়েছে গাড়ি। বেশ কয়েকটি স্থানে রিকশা উল্টে আহত হয়েছেন যাত্রীরা।
জানা গেছে,নগরীর বহদ্দারহাট থেকে হাজী চাঁন্দ মিয়া রোড হয়ে হাজিরপুল ও শমসেরপাড়া এলাকার মানুষ ও তাদের ঘর বাড়িসহ বেশকিছু নিম্নাঞ্চলের সড়কে ছিল হাঁটু থেকে কোমরসমান পানি। বৃষ্টির সঙ্গে জোয়ারের পানি আসায় বেশিরভাগ এলাকা থেকে পানি নামেনি রাতেও । এসব এলাকার বাসাবাড়ির নিচতলায় পানি প্রবেশ করে। পানির থাবা থেকে বাদ যায়নি চট্টগ্রাম ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও চট্টগ্রাম ইন্টারন্যাশনাল ডেন্টাল কলেজ হাসপাতাল আশে পাশে এলাকা সমুহ ও জামেয়া আল ইসলামী দারুল-মা অারিফ এলাকায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও। ফলে হাঁটুপানির নিচে সকাল থেকে ডুবে থাকা রাস্তার মধ্যে দিয়ে হাজি চাঁন্দ মিয়া সওদাগর উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের আসতে দেখা গেছে। তাদের থেকে জানতে পারলাম যে গত ২ জুলাই তরিখে বিদ্যালয়ে অর্ধ বাষির্ক পরীক্ষা শুরু হয়। গত কালের পরিক্ষা দিতে পারলেও আজকের পরিক্ষা পানির কারণ, দিতে পারেনি। এ সড়কে এখনো পর্যন্ত চলাচল করতে পারেনি গাড়ি। ইঞ্জিনে পানি ঢুকে রাস্তার মাঝে অসংখ্য গাড়ি বিকল হয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। বহদ্দারহাট এলাকায় সিএনজি-অটোরিকশা চালক মোহাম্মদ হাসান বলেন, বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতার পাশাপাশি খাল দিয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ করে নগরীতে। এ সময় রাস্তায় স্রোত সৃষ্টি হয়। ফলে গাড়ির ইঞ্জিনে পানি ঢুকে যায়। তাই রাস্তাতেই বন্ধ হয়ে যায় ইঞ্জিন।

Top