না ফেরার দেশে শিবগঞ্জের নির্বাহী অফিসার| শোকাহত শিবগঞ্জবাসী

received_2108657632755409.jpeg

সিফাতুল্লাহ,চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ-
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী অফিসার চলে গেলেন না ফেরার দেশে। আজ রাত ১/৭/১৮ রাত ৩:৩০ মিনিটে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। সকলের প্রিয় মানুষ আজ ছেড়ে চলে গেলেন।

এই তো কয়েকমাস আগের কথা শিবগঞ্জ স্টেডিয়ামে শতভাগ স্কাউটিং ও বাল্যবিবাহ ঘোষণার মূহুতকে স্বরণীয় করতে আয়োজন করা হয়েছিল বিশাল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, উপস্থিত ছিল দেশের নামিদামি শিল্পিরা। এর সব পরিকল্পনা ছিল স্যারের। সেদিন অনেক লোকের সমাগম হয়েছিল, অনেকে জায়গা না পেয়ে ঘুরে গেছেন। ঠিক আজ স্যার স্যার স্টেডিয়ামে এসেছিল, আবারও অনেক মানুষের সমাগম হয়েছিল প্রিয় মানুষটিকে শেষ বারের মতো দেখবার জন্য কিন্তু স্যারের নিথর দেহ, কারো সাথে কথা বলতে পারেনি।

নাটোর জেলার গুরুদাসপুর উপজেলায় বাবা আলহাজ্ব ইউসুফ আলীর পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন শফিকুল ইসলাম। ২৮তম বিসিএস ব্যাচের (পরিচিতি নং-১৬৩৪৪) কর্মকর্তা হিসেবে তিনি শিবগঞ্জ উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে ২০১৬ সালের ১৩ই অক্টোবর যোগদান করেন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন । মৃত্যুকালে তিনি এক মেয়ে, স্ত্রী ও বাবা-মা সহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেলেন।
তিনি শিবগঞ্জ উপজেলাকে বাল্য বিয়ে মুক্ত ঘোষনা ও শতভাগ স্কাউটিং করার পাশাপাশি সরকারের অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্প বাস্তবায়ন, উপজেলার ৫১ টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিডডে মিল চালুর মাধ্যমে শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়া রোধসহ বয়ষ্ক, বিধবা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা সহ সকল সেবামূলক কার্যক্রমে হয়রানী বন্ধ, ও সকল ধর্মের ধর্মীয় কাজে সহোযোগীতা করা ও সজাগদৃষ্টি রেখে কার্যক্রম গুলোতে গতিশীলতা আনতে ভূমিকা রাখায় তাকে জেলায় শ্রেষ্ট উপজেলা নিবার্হী অফিসার হিসেবে পুরুষ্কৃত করা হয়। তাঁর অকাল মৃত্যুতে শিবগঞ্জে শোকের ছায়া নেমে আসে।

Top