যৌতুকের দাবীতে ভোলায় গৃহবধূকে শ্বাশরোধ করে হত্যা

download-3-1.jpg

মাহমুদ আব্বাস,লালমোহন প্রতিনিধি :

ভোলা চরফ্যাশনের আমিনাবাদ গ্রামে গৃহবধূ নিপাকে পিটিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। গত বুধবার সন্ধ্যার পর হত্যার ঘটনা ঘটেছে। যৌতুকের ২০ হাজার টাকার দাবী পরিশোধ না করায় স্বামী এবং তার পরিবারের লোকজন পরিকল্পিত ভাবে এই হত্যার ঘটনা ঘটিয়েছে বলে নিপার বাবা আবুল হাসেম জানিয়েছেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।
মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে। সহকারি পুলিশ সুপার মিজানুর রহমানসহ পুলিশের কর্মকর্তারা গতকাল বৃহষ্পাতিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পুলিশ, নিপার পরিবার ও চিকিৎসক সূত্রে জানাযায়, বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় প্রতিবেশী চায়না বেগম এবং রুবেল আহত গৃহবধূ নিপা বেগম (২০)কে এ্যাম্বুলেন্সে করে চরফ্যাশন হাসপাতার নিয়ে আসেন। হাসপাতালে আনার পর চিকিৎসক নিপাকে মৃত ঘোষণা করেন। চরফ্যাশন হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা.শাহিনারা জানান,হাসপাতালে আনার আগেই নিপা মারাগেছে।
চায়না বেগম জানান, তিনি নিপার প্রতিবেশী। সন্ধ্যার পর নিপার শ্বাশুড়ির ডাক-চিৎকারে তিনি ছুটে যান এবং নিপাকে মৃতপ্রায় দেখতে পান। তারপর পাড়া প্রতিবেশীর সহায়তায় এ্যাম্বুলেন্স ডেকে তিনি এবং নিপার মামাতো ভাই রুবেল নিপাকে হাসপাতার নিয়ে আসেন। স্থানীয় মেম্বার আরিফ ফরাজি জানান, গৃহবধূ নিপা পানিতে পড়েছে বলে স্থানীয়রা সংবাদ দেন। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নিপাকে গুরুতর অবস্থায় পেয়ে দ্রুত হাসপাতার নিয়ে আসেন। নিপর বাবা আবুল হাসেম মাঝি জানান, ২ বছর আগে একই গ্রামের রাজমিস্ত্রি আবু তাহেরের সাথে নিপার বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য সংসারে অশান্তি ছিল। গত ঈদের সময় পরিবারের জরুরী প্রয়োজনের আজুতাতে নিপাকে বাবার বাড়ি থেকে ২০ হাজার টাকা এনেদিতে চাপ দেয়া হয়। ওই টাকা না দেয়ায় নিপাকে নির্যাতন করা হতো। বুধবার বিকেলে ওই টাকার জন্য নিপাকে দফায় দফায় মারধর করা হয়।
মারধরে অসুস্থ হয়ে পরলে সন্ধ্যার পর গলায় ফাঁস দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। চরফ্যাশন থানার উপ-পরিদর্শক জাফর আহমেদ জানান,মৃত নিপার গলায় মোটা দাগ রয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে,গলায় ফাঁস দিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানোর হয়েছে। চরফ্যাশন থানার ওসি এনামুল হক জানান, নিপার স্বামীসহ পরিবারের লোকজন গা-ঢাকা দিয়েছে। তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। আপাদতঃ অপমৃত্যু মামলা নেয়া হয়েছে। নিপার পরিবারের অভিযোগ পেলে মামলা দায়ের করা হবে।

Top