ভারতীয় এল.চি আমদানীতে পঞ্চগড়ের টমেটো ব্যবসায়ীদের লোকসানের আশংকা-

36200314_1001012003414128_6551493669654888448_n.jpg

এম. এ নাঈম, পঞ্চগড় প্রতিনিধি:
টানা ৪ বার শিলাবৃষ্টি ও নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা করে উৎপাদিত টমেটো নিয়ে লোকসানের আশংকায় পঞ্চগড়ের কৃষক ও টমেটো ব্যবসায়ীরা। এর মূলে ভারতীয় এল. চি টমেটো দেশের বাজারে ব্যপক হারে আমদানী। উল্লেখ্য, পঞ্চগড়ের কিছু এলাকার প্রধান অর্থকরি ফসলের মধ্যে অন্যতম হলো টমেটো। এই টমেটোকে কেন্দ্র করে জেলার বাইরের ব্যবসায়ীরাও পঞ্চগড়ের হাড়িভাসা, চাকলাহাট, টুনিরহাট, তালমা, ঠেকরপাড়া, মডেলহাট এলাকায় এসে জড়িয়ে পড়েন টমেটো ব্যবসায়। শরীয়তপুর থেকে আগত ব্যবসায়ী মোঃ আব্দুস সামাদ এ রিপোর্টার কে জানায় আমাদের ঘরের টমেটো আমরা ঢাকায় রপ্তানি করি বর্তমান ঢাকার বাজারে ভারতীয় এল.চি টমেটো ব্যপক হারে আমদানী হওয়ায় আমাদের দেশীয় টমেটোর চাহিদা নেই। তিনি আরো বলেন, এবছর প্রাকৃতিক দুর্যোগে এলাকায় টমেটোর পরিমাণ কম হওয়ায় কৃষকদের কাছ থেকে চরা দামে টমেটো ক্রয় করতে হয়েছে। অথচ এল. চি টমেটো আমদানীর কারণে আমাদের টমেটো সঠিক মূল্যে রপ্তানি করতে পারতেছিনা।
এদিকে হাড়িভাসা ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামের কৃষক সাইদুল ইসলাম জানায়, ৪ বার শিলা বৃষ্টির পর যে কিছু টমেটো পেয়েছি তা ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি না করে নিজেই ঢাকার মোকামে বিক্রি করার উদ্দেশ্যে ঘরে তুলে রাখছি। কিন্তু ঢাকার বাজারের যা অবস্থা তাতে আমাদের ব্যপক লোকসানের আশংকা। তিনি আরো বলেন, যদি ঢাকার বাজারে ভালো চাহিদা থাকতো আর ভারতীয় এল.চি টমেটো যদি আমদানী না হতো তাহলে সর্বোচ্চ ১০ দিন লাগতো আমাদের টমেটো শেষ হতে।

Top