ছাতকে নিখোঁজ আওয়ামীলীগ নেতা ও স্থানীয় ব্যবসায়ী ফারুক মিয়ার লাশ উদ্ধার

36064004_844222955787145_1551048059364835328_n.jpg

ছাতক প্রতিনিধিঃ
ছাতকে আওয়ামীলীগ নেতা ও ব্যবসায়ী ফারুক মিয়া (৪৫) এর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার উত্তর খুরমা ইউনিয়নের পাতলাচুড়া বিল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সহকারী পুলিশ সুপার (ছাতক) সার্কেল দুলন মিয়া ও ছাতক থানার ওসি আতিকুর রহমান দুপুরে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ফারুক মিয়ার গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেন। এ সময় বিলের পাড় ও জালালপুর-কাঞ্চনপুর সড়কে হাজারো জনতার ভীড় লক্ষ্য করা গেছে। ফারুক মিয়া উত্তর খুরমা ইউনিয়নের পুরান মৈশাপুর গ্রামের মৃত মাষ্টার আব্দুস সাত্তারের পুত্র। তিনি উত্তর খুরমা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। শুক্রবার রাতে জালালপুর- কাঞ্চনপুর সড়কের পাশের নিজ দোকান থেকে বাড়ী ফেরার পথে তিনি নিখোঁজ হন। শনিবার সকালে বিলের কচুরিপেনায় তার ব্যবহৃত জুতা ও লুঙ্গি পাওয়া যায়। ঐ দিন পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে আলামত উদ্ধারসহ বিভিন্ন স্থানে
খুঁজা-খুঁজি করেও লাশের কোন সন্ধান পায়নি। রোববার বিলে লাশ ভেসে উঠলে দুপুরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করে। হাত-পা বাঁধা গলা কাটা লাশের গায়ে রয়েছে বেশ ক’টি ক্ষত চিহ্ন।
লাশের গলায় দড়ি দিয়ে কয়েকটি ইট ও বাঁধা ছিলো। পুলিশ ও স্থানীয়দের ধারনা প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে অপহরণ করে নিয়ে হত্যা করেছে। ফারুক মিয়ার স্ত্রী রেহেনা বেগম জানিয়েছেন ক’ দিন ধরে তার স্বামী তাকে বলেছে বিল্লাল চেয়ারম্যান তাকে হত্যা করতে পারে। তিনি জানান
বিল্লাল চেয়ারম্যান ও তার বাহিনী ছাড়া কারো সাথে শত্রুতা ছিল না তার। বিল্লাল চেয়ারম্যানই তার স্বামীকে গুম করে হত্যা করেছে। নিহতের ছেলে ইয়াছিন আহমদ জানায় গ্রামের প্রতিপক্ষ ও বিল্লাল চেয়ারম্যান তার পিতাকে হত্যা করতে পারে। ফারুক মিয়ার ভাতিজা ডাঃ বায়েজিদ আলম আমাদের প্রতিনিধি কে জানান বিল্লাল চেয়ারম্যান ছাড়া কারো সাথে তার দন্ধ ছিল না। তিনি ঘটনার সুষ্ট তদন্ত ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্থির দাবী জানান।
এব্যাপারে উত্তর খুরমা ইউপি চেয়ারম্যান বিল্লাল আহমদ জানান গ্রামের একটি পক্ষের সাথে তার বিরোধ ও মামলা-মোকদ্দমা রয়েছে। এনিয়ে
হত্যা কান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে। তিনি বলেন তদন্তে সব বেরিয়ে আসবে। এদিকে ঘটনার পর থেকে গ্রামের আজাদ মিয়া, সোনা মিয়া ও রিজ্জাদ আহমদের পরিবারের লোকজন বাড়ী ছেড়ে পালিয়েছে বলে গ্রামের লোকজন জানিয়েছেন। রোববার বিকেলে সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার বরকত উল্লাহ
খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ওসি আতিকুর রহমান জানান এঘটনায় থানায় এখনো কোন লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আওয়ামীলীগ নেতা ফারুক মিয়াকে গুম ও হত্যার প্রতিবাদে ছাতক শহরে বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল করেছে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠন।

Top