ভোলা-লক্ষ্মীপুর ফেরিঘাটের দখলদার হাইকোটের নির্দেশে উৎখাত

Vola-fareghat20150810100933.jpg

ফয়সল বিন ইসলাম নয়ন,ভোলা প্রতিনিধি
দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ২১ জেলার সহজ যোগাযোগের গুরুত্বপূর্ণ ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌ-রুটে অবশেষ হাইকোটের আপিল বিভাগের নির্দেশেই ফেরিঘাট ও লঞ্চঘাটের অবৈধ দখলদারকে উৎখাত করা হয়েছে।
হাইকোটের নির্দেশক্রমে অবশেষে সোমবার রাতে বিআইডব্লিউটিএ ঘাট বুঝে নেয়। এদিকে ঘাট দখল নিতে গেলে লক্ষ্মীপুর মজুচৌধুরীঘাটে বাধার সৃষ্টি করে জেলা পরিষদের সদস্য দখলদার আলমগীর হোসেনের লোকজনরা। এ সময় বিআইডব্লিউটিসির সিট্রাকে যাত্রী পরিবহনে বাধা দেয়া হয়। খবর পেয়ে কোস্টগার্ড অপারেশন টিম ও পুলিশ ওই ঘাটে অবস্থান নিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও অবৈধ দখলদারকে ঘাট ছাড়ার নির্দেশ দেয়।
হাইকোটের নির্দেশের কপিসহ পোর্ট অফিসার আবদুর রাজ্জাক ওই ঘাটে অবস্থান নিয়ে অবৈধ দখলদারদের ঘাট ছাড়ার জন্য বললে, দখলদার বাহিনী ওই নির্দেশ মানতে অপারগতা প্রকাশ করে মারমুখী হয়।
এ পরিস্থিতিতে বিষয়গুলো পুলিশ সুপার ও কোস্টগাডের জোনাল কমান্ডারকে অবহিত করা হয়।
এদিকে ঘাটের টোল আদায়ের জন্য বিআইডব্লিউটি এর স্টাফ নিয়োগ করা হয়। এদিকে আলমগীর হোসেনের পক্ষে ভোলায় তার প্রতিনিধি ফারুক জানান, তারা জেলা পরিষদের ঘাট ইজারা নিয়েছেন।
এতদিন হাইকোটের নিষেধাজ্ঞা তাদের পক্ষে থাকায় তারা বিআইডব্লিউটিএর ঘাটের টোল আদায় করেছিলেন।
হাইকোটের নির্দেশের কারণেই এখন ছেড়ে দিয়েছেন। আলমগীর হোসেনও জানান একই কথা। বাধা দেয়ার বিষয় তিনি অস্বীকার করেন।

Top