সাচনা-সুনামগঞ্জ রাস্তায় ঠেলাঠেলি করে গাড়ীপার :জনদূর্ভোগ চরমে

33621344_1954382121252282_6146172366071267328_n.jpg

মো:অাখতারুজ্জামান তালুকদার, জামালগঞ্জ প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জ সদর বিশম্ভরপুর জামালগঞ্জসহ তিনটি উপজেলার লক্ষাধীক মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তা সাচনা-সুনামগঞ্জ। ব্যাস্ততম রাস্তাটিতে সপ্তাহ খানেক ধরে সমস্যার নতুন মাত্রা যোগ হয়ে জন দূর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে।

কলায়া নামক স্হানে দাক্কাদাক্কি করে গাড়ী পারাপার করে চলাচল করতে হয়েছে যাত্রীদের।এমনিতেই দীর্ঘদিন থেকে সারা রাস্তা জুড়ে কানা খন্দকে ভরপুর।কোথায় তিল ধরনের ঠাই নেই পুরো রাস্তাটিতে ছোট বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

যদিও বৃষ্টির মধ্যে রাস্তায় জুড়াতালির কাজ চলছে।তবে এসব কাজ কতটা টেকসই হবে তা নিয়ে জনমনে নানা প্রশ্ন রয়েছে।লম্বা বিরতি দিয়ে একটু আধটু কাজ করছে সংশ্লিষ্ট টিকাদারী প্রতিষ্টান।

সাচনা-সুনামগঞ্জ রাস্তার কলায়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে রক্তি নদী খননের ড্রেজার মেশিনের পাইপ দিয়ে মাটি ভরাট চলছিল।রাস্তার উপর দিয়ে এই পাইপ নেওয়ায় পাইপের উভয় সাইডে মাটি দিয়ে ভরাট করে কোন রকম যানবাহন চলাচল করছিল এতদিন।

সম্প্রতি সময়ে বৃষ্টিপাতের ফলে উভয় সাইডের মাটি কাদাযুক্ত হওয়ায় যান চলাচলের মারাত্মক বিঘ্র ঘটছে।এই স্হানে যাত্রীদের নামিয়ে খালি গাড়ী পার করতে চালকগণ হিমশিম খাচ্ছেন।অানয় বিনয় করে লোকজন দিয়ে ঠেলা ঠেলি করে গাড়ী পার করছে গাড়ী চালকগণ।যাত্রীদের উঠানামা করে রাস্তা পারাপার করতে হচ্ছে।এতে যাত্রী সাধারণের যাতায়াত ও মালামাল পরিবহনে দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

যাত্রী আবুল কাশেম অাখঞ্জী বলেন,সামান্য একটু রাস্তার জন্য আমাদের চলাচল করতে সমস্যা হচ্ছে।পাইপের সাইডের মাটি কাদা হওয়ায় গাড়ী চলতে পারে না।এখানে এসে গাড়ী আটকে যায়।দাক্কাদাক্কি করে গাড়ী পার করতে যেয়ে যানজট সৃষ্টি হয়।

পাউবোর পাইপ না সরালে অথবা ইট কনকিট দিয়ে মেরামত না করলে যে কোন সময় যান চলাচল বন্দ হয়ে যেতে পারে।

গাড়ী চালক নিজাম আলম বলেন,কয়েক দিন ধরে এখানে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে।ইট কনকিট বা বালু দিয়ে মেরামত করে দিলেই আমরা আগেরমত চলাচল করতে পাবর।

এব্যারে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের রক্তি নদী খননের দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল আলমের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে উনার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Top