চট্টগ্রামে আবারো বিতর্কিত কান্ড: মৃত নবজাতক ডাস্টবিনে

received_318957815301053.jpeg

জে,জাহেদ ব্যুরোচিফ :
চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানার চকবাজার এলাকার পিপলস হাসপাতাল মৃত নবজাতকের লাশ ডাস্টবিনে ফেলে দেয়া হয়েছে।
মঙ্গলবার (২২ মে) সকালে এ ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে পুলিশ ও নবজাতকটির অভিভাবকদের দাবির মুখে লাশটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে কর্তৃপক্ষ।
জানা যায়, নগরীর পুরাতন চান্দগাঁও থানার বাসিন্দা মধ্যপ্রাচ্য প্রবাসী মো. ফরিদের স্ত্রী আমেনা বেগম (২৬) হাসপাতালটিতে মঙ্গলবার ভোর পাঁচটার দিকে জমজ সন্তানের জন্ম দেন। সেসময় একটি বাচ্চা মৃত জন্ম নেন। পরে চিকিৎসক আমেনার শ্বাশুড়িকে বিষয়টি জানালে তিনি নবজাতকটির লাশ ফেলে দিতে বলে। এরপর একজন আয়া লাশটি ডাস্টবিনে ফেলে দেয়। সকাল দশটায় বর্জ্যরে গাড়িতে লাশটি তুলে দেয়া হয়।
কিন্তু নবজাতকের অন্য স্বজনেরা দাবি করে, কর্তৃপক্ষ কাউকে না জানিয়ে লাশ ডাস্টবিনে ফেলে দিয়েছে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসকের দাবি, অভিভাবকের অনুমতিক্রমে লাশ ফেলা হয়েছে। আবার দাবি করায় লাশ ফিরিয়ে আনা হয়েছে।
চিকিৎসক ডাক্তার কুসুম আকতার বলেন, আমেনার ডেলিভারির সময় ছিল জুলাই মাসের শুরুতে। কিন্তু সময়ের আগে তার প্রসব বেদনা উঠে। মঙ্গলবার ভোর চারটায় সে ফোন করে আমার বাসায় চলে আসে। পরে তাকে পিপলস হাসপাতালে ভর্তি হতে বলি। ভোর পাঁচটার দিকে তার জমজ বাচ্চা হয়। কিন্তু প্রথম বাচ্চাটি মৃত এবং গলিত ছিল। এর আগে পরীক্ষা করে একটি বাচ্চার শারীরিক অবস্থান ভালো না বলে আমি তাকে জানায়।
পিপলস হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুভাষ চন্দ্র সূত্রধর সাংবাদিকদের বলেন, অভিভাবক অনুমতি দেয়ার লাশটি ফেলে দেয়া হয়। পরে অন্যরা এসে দাবি করলে আমরা লাশ উদ্ধার করে তাদের নিকট হস্তান্তর করেছি।

Top