সাতক্ষীরায় বিরল রোগে আক্রান্ত মুক্তামনির আশা ছেড়ে দিয়েছে তার পরিবার

received_183841892336512.png

শেখ রিপন,সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ

বিরল রোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার মুক্তামনি(১২) ভাল নেই। দিনে দিনে মুক্তিমনির হাতের অবস্থা খারাপ হতে চলছে। কষ্ট আর যন্ত্রনা নিয়ে সারাদিন রাত পার করছে বিছানায় শুয়ে মুক্তামনি।
সদর উপজেলার বাঁশদহা ইউনিয়নের কামারবায়সায় শিশু মুক্তার বাড়িতে খবর নিলে মুক্তমনির পিতা ইব্রাহিম বলেন,আমার মুক্তমনি ভাল নেই। দিনে দিনে অবস্থা খারাপ হতে চলছে। পিতা ইব্রাহিম আরো বলেন,প্রায় প্রতি দিনই আমরা হাতের ড্রেসিং করি, ব্যান্ডেজ খুলে রেখে দিলে হাত প্রচন্ড ফুলে যায়, ফেটে ফেটে রক্ত আসে। আবার হাত ব্যান্ডেজ করে রাখলে হাতের উপরের অংশ ফুলে বুকের দিকে উঠে যায়। ড্রেসিং এর সময় প্রায়ই পোকা পাওয়া যায়,প্রচন্ড গন্ধ বের হয়। উলে­খ্য মিডিয়ার বদৌলতে এবং প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিদের্শনায় ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক ডা.সমান্ত লালের তত্বাবধনে চিকিংসায় মোটামুটি ভাল হলেও বর্তমানে মুক্তার শারীরিক অবস্থার অবনতি।
গত বছরের ১১ জুলাই ২০১৭ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রধান মন্ত্রীর শেখ হাসিনার নির্র্দেশে ভর্তি হয়ে ২২ শে ডিসেম্বর ২০১৭ চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফেরেন মুক্তামনি। মুক্তা দীর্ঘ ৫ মাস ধরে বাড়িতে অতি কষ্টে জীবন যাপন করছে। শিশু মুক্তা বলেন,আমার হাত জ্বালা পোড়া করে,পোকায় কামাড়,খুব কষ্ট হয় আমার। মুক্তা আকুতি করে বলেন,আমি আবার স্কুল যেতে চাই,পড়া লেখা করতে চাই।

Top