কক্সবাজারে সাংবাদিক শফির উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা

SHAFIULLA-SHAFI-18-05-2018-1.jpg

দিদারুল আলম জিসান,কক্সবাজার:

দৈনিক যুগান্তরের কক্সবাজার প্রতিনিধি ও স্থানীয় দৈনিক ইনানীর বার্তা প্রধান শফিউল্লাহ শফির উপর হামলায় ঘটনায় দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ১৯ মে হামলার শিকার শফিউল্লাহ শফি বাদী হয়ে হামলার মূল গডফাদার মোঃ সেলিমকে প্রধান আসামী করে সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

সেলিম পটিয়া শাহ্ গদিয়া মার্কেটের পেছনের বাসিন্দা (বর্তমানে শহরের বাজারঘাটা) মৃত সুলতান আহমদের পুত্র মামলার বাকী আসামীরা হলো-পটিয়া শাহ্ গদিয়া মার্কেটের পেছনের বাসিন্দা (বর্তমানে শহরের বাজারঘাটা) মৃত সুলতান আহমদের পুত্র মোঃ জসিম উদ্দিন, সিটি কলেজ রোডের (সাহিত্যিকা পল্লী) আবদুল মালেক ও ঝাউতলা গাড়ির মাঠের জাহেদ। এছাড়া অজ্ঞাত আরো ৪/৫ জনকে আসামী করা হয়েছে।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে আটক সেলিমকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। বাকী আসামীরা এখনো গ্রেপ্তার হয়নি। হামলার শিকার সাংবাদিক শফিউল্লাহ শফি বলেন-বাকী আসামীরা গ্রেপ্তার না হওয়ায় তারা শফিউল্লাহ শফিকে নানা ভাবে হুমকি প্রদান করে যাচ্ছে।

বাকী পলাতক আসামীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে আটকের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন সাংবাদিকবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দরা। পাশাপাশি তারা সাংবাদিক শফির উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক কঠোর শাস্তিরও দাবী জানান।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক দুর্লভ চন্দ্র দাস বলেন- আটক আসামী সেলিমকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। পাশাপাশি বাকী আসামীদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে পুলিশ। উল্লেখ্য-শুক্রবার বিকেল ৪ টার দিকে শহরের বদরমোকাম এলাকার (কেন্দ্রীয় মহা-শ্মশানের পাশে) সাংবাদিক শফির বাসভবনে সেলিমের নেতৃত্বে অন্যান্যা আসামীরা এই ন্যাক্কার জনক হামলার ঘটনা ঘটায় সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসী দল। এসময় সন্ত্রাসীরা শফির হাতে থাকা স্যামসাং গ্লাক্সি-এস-৮ প্লাস মডেলের ৮২ হাজার টাকা মূল্যের একটি মোবাইলও ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

Top