জামালগঞ্জে’র সেকেন্ড চান্স এডুকেশন কার্যক্রমের অগ্রগতি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্টিত।

20180518_104131.jpg
জামালগঞ্জ(সুনামগঞ্জ)প্রতিনিধি::
জামালগঞ্জে সেকেন্ড চান্স এডুকেশন বিভাগ এর চলমান কার্যক্রম অগ্রগতি বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্টিত হয়েছে।
জামালগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিস গতকাল শুক্রবার(১৮-মে) সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এই কর্মশালার অায়োজন করেন।
সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা পঞ্চানন বালার সভাপতিত্বে ও মাতারগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সারোয়ার হোসেন সরু’র সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর পরিচালক(প্রশিক্ষণ),যুগ্ম সচিব মো:অাব্দুর রউফ।
তিনি তাঁর বক্তব্য বলেন ঝড়ে পড়া শিশুর প্রতি সবাই সহানুভূতিশীল ও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করতে হবে।
তিনি আরও বলেন মানুষ এমনিতেই শিশুদের পড়ালেখা বন্ধ করে দেয়নি।পরিবারের দরিদ্রতা আর অগ্রতাই এর জন্য বেশী দায়ী।শিশুরা কম বয়সে লেখাপড়া ছেড়ে দিয়ে কাজে যোগ দিবে এটা আমাদের রাষ্ট্রের জন্য লজ্জার।
শতভাগ শিক্ষা নিশ্চিত করতে সরকার সেকেন্ড চান্স এডুকেশন চালু করা হয়েছে।তিনি অাশা প্রকাশ করে বলেন অাশার অালো শিখন কেন্দ্র একদিন সমাজে অলো ছড়াবে।
বিশেষ অতিথি ছিলেন,প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সিলেট বিভাগের উপ-পরিচালক তাহমিনা খানম।
অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,সেকেন্ড চান্স এডুকেশন বিভাগের পরিচালক সৈয়দা নুরজাহান বেগম,সহকারি পরিচালক এ,কে,এম রিয়াজ উদ্দিন,কর্মকর্তা আব্দুল হান্নান প্রমূখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো:বজলুর রশীদ।
কর্মশালায় জামালগঞ্জ উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক,আশার অালো শিখন কেন্দ্রের শিক্ষক ম্যানেজিং কমিটির প্রতিনিধি সহ আরডিআরএস অফিসের কর্মকর্তাগণ উপস্হিত ছিলেন।
উল্লেখ্য,জামালগঞ্জ উপজেলায় বিগত ৯ মাস থেকে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে সেইভ দ্যা সিল্ডেন সহযোগীতায় সেকেন্ড চান্স এডুকেশন প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন করছে আরডিআরএস-বাংলাদেশ।
উপজেলায় ২ শত ১৩ টি অাশার অালো শিখন কেন্দ্রের মাধ্যমে প্রতি স্কুলে ১জন করে ২শত ১৩ জন শিক্ষক ৬ হাজার ৩শত ৪ জন ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের পাঠদান করছেন।
Top