জেরুজালেমে ইসরায়েল কর্তৃক সহিংসতায় জাতিসংঘে ওআইসির উদ্বেগ

photo-1526543593.jpg

বাসস :

জেরুজালেমে ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনীর সহিংসতায় ফিলিস্তিনের সাধারণ নাগরিকদের হতাহতের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি)। বুধবার জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) রাষ্ট্রদূত পর্যায়ের জরুরি সভায় এ উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়।

বাংলাদেশ ওআইসির নবনিযুক্ত কাউন্সিল সভাপতি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন থেকে পাঠানো আজ বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, সভার শুরুতে জেরুজালেমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানান্তরের পরিপ্রেক্ষিতে ইসরায়েলের নিরাপত্তা বাহিনীর সহিংসতায় ব্যাপক হতাহতের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন ও বক্তব্য প্রদান করেন জাতিসংঘে ফিলিস্তিনের স্থায়ী পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রদূত ড. রিয়াদ এইচ মনসুর। এ ছাড়া ১৮ মে তুরস্কে অনুষ্ঠেয় ওআইসির বিশেষ জরুরি শীর্ষ সম্মেলনের বিষয়ে সভাকে অবহিত করেন তুরস্কের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত ফেরিদুন হাদি সিনিরলিওগুলু।

সভায় ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর স্থায়ী প্রতিনিধিরা ফিলিস্তিনের সাধারণ নাগরিকদের ওপর ইসরায়েলের অমানবিক ও অযাচিত সহিংসতার তীব্র নিন্দা জানান। সভায় উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবিলায় পরবর্তী করণীয় নিয়ে আলোচনায় নিরাপত্তা পরিষদের মাধ্যমে সাম্প্রতিক এই সহিংস ঘটনার একটি আন্তর্জাতিক স্বাধীন ও নিরপেক্ষ তদন্ত অনুষ্ঠানের ওপর জোর দেওয়া হয়। এতে সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় ১৮ মে অনুষ্ঠেয় মানবাধিকার কমিশনের জরুরি সভায় এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়। দূতাবাস স্থানান্তরের বিতর্কিত সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনকে ওআইসির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো এবং অন্য কোনো সদস্য রাষ্ট্র যাতে যুক্তরাষ্ট্রকে অনুসরণ না করে, সে বিষয়ে কূটনৈতিকভাবে যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়েও সভায় আলোচনা হয়।

সভায় অনতিবিলম্বে ফিলিস্তিনি শান্তি প্রক্রিয়া শুরু করার আহ্বান জানানো হয়।

গত ১৪ মে জেরুজালেমে নতুন দূতাবাস ভবন খোলে যুক্তরাষ্ট্র। এদিন সীমান্তে বিক্ষোভরত ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরায়েলি সেনাদের গুলিতে অর্ধশতাধিক মানুষ নিহত হয়।

Top