অকুতোভয় এক মুজিব সৈনিক হাতিয়ার আবদুল হালিম আজাদ

P1060425.jpg

কামরুল ইসলাম,হাতিয়া থেকে–
একের পর এক মিথ্যা মামলা, হামলা ও নির্যাতনের শিকার হাতিয়ার যুবরত্ন খ্যাত আওয়ামী রাজনীতির একনিষ্ঠ কর্মী আবদুল হালিম আজাদ। তবুও থেমে নেই পথচলা। ষড়যন্ত্রের পাহাড় ভেঙ্গে এগিয়ে চলছেন দুর্বার গতিতে।

কৈশর জীবন থেকে রাজনীতির সিঁড়ীতে পা রাখেন আবদুল হালিম আজাদ। স্কুল জীবন থেকে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারণ করে রাজনৈতিক জীবনের ২৫ টি বছর অতিবাহিত করেন। এগিয়ে যান নেতা কর্মীদের ভালোবাসা আন্তরিকতা আর সহযোগিতা নিয়ে।

তাকে কখনোই দেখা যায়নি নেতার স্বীকৃতি কিংবা পদমর্যাদা চাইতে। তিনি সব সময় হাতিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগ এর একজন কর্মী পরিচয় দিতে ভালোবাসেন। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে হাতিয়া উপজেলার ৫নং চরঈশ্বর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়ে তিনি নিরঙ্কুশ জয়লাভ করেন। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের নিপীড়ন থেকে সারা দেশের আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের মতো তিনিও রেহাই পাননি। এখনো বিএনপি-জামায়াত এর ইন্ধনে একটি কুচক্রী মহল তার সফল রাজনৈতিক নেতৃত্বে ভীত হয়ে তাকে রাজনীতির মাঠ থেকে সরানোর ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে একের পর এক মিথ্যা মামলা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান লুটসহ নানাভাবে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিকভাবে জর্জরিত করে। কুচক্রী মহলের এসব হামলা-মামলাকে উপেক্ষা করে জননেত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বের প্রতি দৃঢ় মনোবল নিয়ে এগিয়ে চলছেন সমৃদ্ধ হাতিয়া গড়ার লক্ষ্যে।

তিনি বলেন, একটা মহল হাতিয়ার সাধারণ মানুষদের শোষণ করে রাতারাতি ধনী হওয়ার চেষ্টায় তৎপর রয়েছে। মানুষের মানবিক অধিকারটুকুও তারা কেড়ে নিচ্ছে প্রতিনিয়ত। এসব দুঃখী মানুষের পাশে এসে যারা দাঁড়ায় তাদেরকে ঘায়েল করার জন্য তারা নানা ষড়যন্ত্র করে। কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা আশ্রাফও রেহাই পায়নি তাদের রোষানল থেকে। জীবন দিতে হলো নোংরা রাজনীতির বলী হয়ে।

তিনি আরো বলেন, আমাকে তারা নানা ভাবে নির্যাতিত করে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দেওয়ার জন্য অপচেষ্টা করে থাকে।

আবদুল হালিম আজাদ শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে ধারন করে উন্নয়নের জন্য রাজনীতি করে আসছেন। তিনি প্রতিহিংসার রাতনীতি পছন্দ করেন না। দল-মতের উর্ধ্বে উঠে উদার রাজনীতি চর্চার মধ্য দিয়ে সমৃদ্ধ হাতিয়া গড়ার প্রত্যয়ে তার আপোষহীন নেতৃত্ব। হাতিয়াবাসীর কাছে তিনি একজন সমাদৃত রাজনৈতিক নেতা।

Top