কুতুবদিয়ায় চাঞ্চল্যকর প্রিয়া মল্লিক হত্যা চেষ্টায় জড়িত এক আসামী গ্রেফতার

received_1985845361729487.jpeg

নজরুল ইসলাম,কুতুবদিয়া :
———————–
বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমিকা প্রিয়া মল্লিককে কুতুবদিয়ায় এনে হত্যার চেষ্টায় অভিযুক্ত কথিত প্রেমিক বাঁশখালীর ওয়াজেদ আলী পাড়ার এহছানের সহযোগী মোহাম্মদ আলম (৪২) কে গ্রেফতার করেছে কুতুবদিয়া থানা পুলিশ। মোহাম্মদ আলম কুতুবদিয়া উপজেলার আলী আকবর ডেইল ইউনিয়নের সন্দ্বিপী পাড়ার মৃত ছালেহ আহমদের ছেলে। পুলিশ মোবাইল কল লিস্ট মাধ্যমে তথ্য নিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গত শনিবার দুপুরে নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে পুলিশ।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কুতুবদিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিরুল ইসলাম জানান, গত ১৭ মার্চ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রিয়া মল্লিককে কুতুবদিয়ায় এনে তাবলরচর বায়ুবিদ্যুৎ এলাকায় নির্জন রাতে হত্যার চেষ্টা করে বাঁশখালী ইউনিয়নের ওয়াজেদ আলী পাড়ার আবদুস সাত্তারের ছেলে এহছান (২৮) ও তার সহযোগী একই এলাকার তাহের (২৭) নামের এক বন্ধু এবং কুতুবদিয়ার মোহাম্মদ আলম (৪২)। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে ওই রাতে ঘটনাস্থল থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে অলৌকিকভাবে বেঁচে যায় প্রিয়া মল্লিক।

ওই ঘটনায় গত ১৯ মার্চ প্রিয়া মল্লিক বাদী হয়ে কুতুবদিয়া থানায় একটি (১৭৩/১৮) মামলা দায়ের করলে পুলিশ আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রাখে। দীর্ঘ দেড় মাসের মাথায় ঘটনায় জড়িত অন্যতম আসামী মোহাম্মদ আলমকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ। তাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রিয়া মল্লিক হত্যা চেষ্টায় সহযোগিতা করার কথা স্বীকার করেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। রবিবার (১৩মে) সকালে তাকে কুতুবদিয়া জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট রেজাউল হকের আদালতে হাজির করা হলে আদালত আসামীকে ১৬৪ ধারা মতে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।
এব্যাপারে কুতুবদিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ দিদারুল ফেরদাউস জানান, এ মামলার প্রধান আসামী এহছানসহ তার অন্য সহযোগিদেরও কম সময়ের মধ্যে আটক করার জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছে পুলিশ। মামলার বাদি প্রিয়া মল্লিক আটককৃত আসামী মোঃ আলম ঘটনায় জড়িত ছিল বলে সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

Top