রাবিতে কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে মানববন্ধন

received_441842209598816.jpeg

আব্দু রহিম,রাবি প্রতিনিধি :
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কার আন্দোলন কারিরা আজ বুধবার সকাল ১১:০০টায় প্যারিস রোডে কোটা বাতিলে প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে মানব বন্ধনের আয়োজন করে।
এই আন্দোলনে অংশ নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।
মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সায়েম, লোক প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী রাশিদুল ইসলাম মুবীন, দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিদ হাসান, বায়োক্যামেস্ট্রি বিভাগের শিক্ষার্থী আরিফুজ্জামান এবং ছাত্র অধিকার সংগ্রামের আহ্বায়ক মাসুূদ মোন্নাফ সহ আরো অনেকে।
তারা বলেন, গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকে আমরা আন্দোলন করে যাচ্ছি অথচ আমরা এর কোন আশার আলো দেখছিনা। এটা ছাত্র সমাজের জন্য বড়ই পরিতাপের বিষয়।
আমরা চাই একটি বৈষম্যমুক্ত সমাজ গড়তে যেখানে দেশের প্রতিটি ছাত্র তার নিজের যোগ্যতা অনুযায়ী কাঙ্ক্ষিত চাকুরী পাবে।
তারা আরও বলেন, মানবতার মাতা, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের দাবী মেনে নিয়ে প্রজ্ঞাপন জারির আশ্বাস দিয়েছিলেন।
কিন্তু মন্রী পরিষদের কিছু কুচক্রী মহল আমাদের এ দাবীকে প্রত্যাখান করেছে। তারা সবাই কোটাধারী আমলা। তারা যেন তাদের পদ ছেড়ে দেয়।
তারা যদি সাধারণ ছাত্র সমাজের এ দাবী মেনে না নেয়। তাহলে আমরা তীব্র আন্দোলনের মাধ্যমে তার সমুচিত জবাব দেবো। এটা কোনো রাজনৈতিক আন্দোলন আন্দোলন নয়।
এটা ছাত্র অধিকার সংরক্ষণের আন্দোলন।
আহ্বায়ক মাসুদ মোন্নাফ বলেন, আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়ার ফলে ডিবি পুলিশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র রাশেদকে মারার হুমকি দিয়েছে। তার পিতাকে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এবং আন্দোলন কারিদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করেছে।
আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলবো যারা আপনাকে এই আন্দোলন সম্পর্কে কু মন্ত্রনা দিচ্ছে তাদের খোঁজ নিয়ে দেখুন তাদের সন্তানদের সামান্য জ্বর হলেই তারা সন্তানকে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর, আমেরিকায় নিয়ে যায়। তারা বিদেশে টাকার পাহাড় গড়েছে। এটা বাংলাদেশে কোটা ব্যবস্থার একটি কুফল।
আমরা চাইনা এই বাংলায় আর কোনো কোটাধারী ডাক্তাটারের হাতে রোগী মারা যাক।
কোনো কোটাধারী প্রকৌশলীর অবহেলায় বড় বড় দালানের ছাদ ধসে পড়ুক।
মানববন্ধন শেষে তিনি সকল সাধারন শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অংশ গ্রহন করার জন্য ধন্যবাদ জানান।

Top