দীর্ঘদিন পর দখল মুক্ত হলো সাচনা বাজার; পথচারিদের স্বস্থির নি:শ্বাস।

FB_IMG_1525534660437.jpg

আকতারুজ্জামান তালুকদার,জামালগঞ্জ প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জের ভাটি জনপদের ব্যবসা বানিজ্যর প্রান কেন্দ্র হিসাবে সাচনা বাজার দেশ ব্যাপি খ্যাতি রয়েছে।সাচনা বাজার কে কেন্দ্র করে স্বাধীনতা পূর্ব তৎপরবর্তী সময়ে জামালগঞ্জ উপজেলার সকল রাজনৈতিক অর্থনৈতিক সামাজিক সম্পর্ক গড়ে উঠে।

সাচনা বাজার ঐতিহাসিক বটতলায় এক সময় বিভিন্ন সভা সমাবেশ হত।সময়ের পরিবর্তনে ঐতিহাসিক বটতলা সহ পুরো বাজারের মাঝে মেইন রোডে সারি সারি অবৈধ স্হাপনা গড়ে উঠে।

প্রতিযোগিতা মূলক ভাবে দখলদারগণ এসব স্হাপনায় বিভিন্ন পন্যের পরসা সাজিয়ে স্যবসা চালিয়ে যান।এতে পথচারি চলাচলে মারাত্মক সমস্যা সৃষ্ট হয়।স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী সহ ক্রেতা বিক্রেতা চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে।

বাজারের গলি দিয়ে কোন প্রকার যান চলাচল দূরের কথা পণ্যে নিয়ে চলাই মুশকিল হয়ে পড়েছিল।উপজেলার ব্যস্ততম বাজারটি একটি অল্পসময়ে চলাচলের কষ্টের বাজারে পরিনত হয়েছিল।ব্যবসায়ীদের পণ্যে আদান প্রদানে সমস্যা ছিল অপূরণীয়।বিভিন্ন সময়ে স্হাপনা উচ্ছেদের জন্য প্রসাশনের নিকট দাবী জানানো হয়েছিল।

জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি অফিসার শামীম আল ইমরান যোগদানের পর দৃশ্যপট পাল্টে যায়।তিনি অবৈধ স্হাপনা উচ্ছেদের উদ্ব্যেগ গ্রহন করেন।

আর এই মহতি উদ্ব্যেগ কে স্বাগত জানিয়েছেন উপজেলার রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গ,ব্যবসায়ী সমাজ,শিক্ষার্থী,গণমাধ্যম কর্মীসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ।

উপজেলা নির্বাহি অফিসার শামীম আল ইমরান (৫ই মে)শনিবার সকাল ১০টার মধ্যে বাজারের গলি থেকে অবৈধ স্হাপনা সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিলে ব্যবসায়ীরা অাইনের প্রতি সম্মান জানিয়ে নিজ উদ্ব্যেগে শুক্রবার রাতেই স্হাপনা সরিয়ে নিয়েছেন।

উচ্ছেদের ব্যাপারে সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইউসুফ অাল আজাদ,জেলা আ’লীগের সহ সভাপতি ও সাচনা বাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শামীম ও সাচনা বাজার বনিক সমিতির নেতৃবৃন্দ সহায়তা করছেন।

এর আগে নির্বাহি অফিসার বিভিন্ন মহলের সাথে বিষয়টি নিয়ে অালোচনা করেন।বাজারে দীর্ঘদিন পর উচ্ছেদ অভিযান সফল ভাবে বাস্তবায়ন হওয়ায় প্রশংসিত হয়েছেন তিনি।

এলাকাবাসীর দাবি অবৈধ স্হাপনাগুলো যাতে স্হায়ী ভাবে অপসারণ করা হয়।কোন ক্রমেই যাতে পুনরায় এখানে স্হাপনা বা দোকান পাট করতে না পারে। এছাড়া উচ্ছেদ কৃত ব্যবসায়ীগণের ব্যবসার সুবিধার্তে অচিরেই তাদের পূর্নবাসনের দাবি জানানো হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহি অফিসার শামীম আল ইমরান বলেন,ব্যবসায়ীগণ অাইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে উচ্ছেদ অভিযানের পূর্বেই স্হাপনা সরিয়ে নেওয়ায় আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই।তিনি বলেন এরকম কোথাও নজির নেই যে বিনা অভিযানে এতগুলো স্হাপনা এক সাথে সরিয়ে নেওয়ার।তিনি দখলদার ব্যবসায়ীদের আশ্বস্ত করে বলেন,তোমরা নিরাশ হয়ো না।তোমাদের পুর্নবাসনের ব্যাবস্তা গ্রহন করব।

Top