ত্রিশালে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেতে আত্মহত্যার চেষ্টা মর্জিনা আক্তারের

unnamed-5.jpg

ত্রিশাল থেকে মোঃরুবেল আকন্দ :-
ময়মনসিংহ ত্রিশাল উপজেলার ১নংধানিখোলা ইউনিয়নের  ধানিখোলা মধ্য ভাটিপাড়া গ্রামে মোছাঃ মর্জিনা আক্তার (১২) বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেতে আত্মহত্যা চেষ্টা। গত ২২শে এপ্রিল রবিবার ধানীখোলা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্রী মোছঃ মর্জিনা আক্তার বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেতে এ আত্মহত্যার চেষ্টা করে।

জানা যায়, মর্জিনা লেখাপড়া করে  অনেক বড় হওয়ার ইচ্ছায় প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত  বিয়ে করবেনা বলে স্থির সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ৤ ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবুজাফর রিপন”র গঠিত “বিগ্রেড” থেকে সে বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে জেনেছে। প্রাপ্ত বয়সের আগে বিয়ে দেওয়া অপরাধ জেনে মর্জিো লেখাপড়া করে মানুষ হতে চায় কিন্তু মর্জিনার পরিবার রাজি ছিলনা পড়ালেখা করানোর জন্য। মর্জিনার বাবা’মা বিয়ের চাপ দেয়ায় মর্জিনা বিয়ে থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আত্মহত্যার চেষ্টা করে। তার বান্ধবীরা খবর পেয়ে বিগ্রেড দলের নেতা মোছাঃ মিথা আক্তার ও তার দলের সদস্যদের জানায় এবং তারা মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে পরিবারের লোকজনের সহযোগীতায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে মর্জিনা প্রাণে বেচে যায়।

এ বিষয়ে খবর পেয়ে ১নংধানিখোলা ইউপি’র চেয়ারম্যান আসাদুল্লাহ আসাদ ও ধানিখোলা উচ্চ বিদ্যবালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ ইকবাল বাহার মর্জিনার বান্ধবী বিগ্রেড দলের নেতা মোছাঃ মিথা আক্তার ও তার দলের সদস্যদের আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানায়। উক্ত স্কুলের প্রধান শিক্ষক ইকবাল বাহার” ও ২জন সহকারী শিক্ষক ও ১নং ধানিখোলা ইউপি’র চেয়ারম্যান আছাদুল্লাহ আসাদ সহ মর্জিনাকে দেখতে হাসপাতালে যান।

পারিবারিক সুত্রে জানা যায় মর্জিনা এখন অনেকটা সুস্থ। মর্জিনা সুস্থ হয়ে বাড়ীতে আসলে ইউপি’র চেয়ারম্যান তার বাবা বাদশাহ ও মা’কে নিয়ে বসবেন এবং তাদের মেধাবী সন্তানকে বাল্যবিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত কেন নিল তা নিয়ে আলোচনা করবেন বলে জানালেন ইউপি’র চেয়ারম্যান আসাদুল্লাহ আসাদ ।

বিগ্রেড দলের সদস্যরা হলেন ধানিখোলা উচ্চ বিদ্যবালয়ের শিক্ষার্থী ও বিগ্রেড দলের নেতা মোছাঃ মিথা আক্তার,মোছঃ সাদিয়া খাতুন,মোছাঃ মারিয়া আক্তার,মোছঃ প্রিথিলা আক্তার,মোছাঃ মাহিয়া খাতুন,মোছাঃ আমেনা আক্তার,মোছাঃ বৃষ্টি আক্তার,মোছাঃ অন্তরা খাতুন,মোছাঃ ঋতু আক্তার ও মোছাঃ শিল্প খাতুন।

বিগ্রেড দলের নেতা মোছাঃ মিথা আক্তার সাংবাদিকদের জানান, ধানীখোলা ইউনিয়নে একটি বাল্যবিবাহ হতে দিবেননা, তিনি বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছেন।

Top