শিবগঞ্জে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বন্ধ হলো বাল্য বিবাহ, ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

IMG_20180419_121336.jpg

সিফাতুল্লাহ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার রশিকনগর এলাকা থেকে বর-কনে, বরের মামা, দুলাভাই ও কনের মাকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হল- উপজেলার নয়ালাভাঙা ইউনিয়নের রশিকনগর গ্রামের লুৎফল হকের স্ত্রী মোসা. রোজলী বেগম (৩৯), কনে মোসা. সুমাইয়া খাতুন (১৬), একই ইউনিয়নের সুন্দরপুরের দবির উদ্দিনের ছেলে বর হারুন অর রশিদ (২৪), দুলাভাই আবু বাক্কার সিদ্দিক (২৬) ও বরের মামা সফিকুল ইসলাম (৪৬)।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম জানান, বাল্যবিয়ে হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দুপুর ২টার সময় রশিকনগর এলাকায় উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বর-কনে, কনের মা, বরের মামা ও দুলভাইকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুমাইয়া খাতুন বাল্যবিয়ে সম্পন্ন হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে। এঘটনায় উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সাহিদা আকতার বাদি হয়ে বাল্যবিয়ে নিরোধ ২০১৭ আইনে বর-কনেসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার রশিকনগর এলাকা থেকে বর-কনে, বরের মামা, দুলাভাই ও কনের মাকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হল- উপজেলার নয়ালাভাঙা ইউনিয়নের রশিকনগর গ্রামের লুৎফল হকের স্ত্রী মোসা. রোজলী বেগম (৩৯), কনে মোসা. সুমাইয়া খাতুন (১৬), একই ইউনিয়নের সুন্দরপুরের দবির উদ্দিনের ছেলে বর হারুন অর রশিদ (২৪), দুলাভাই আবু বাক্কার সিদ্দিক (২৬) ও বরের মামা সফিকুল ইসলাম (৪৬)।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শফিকুল ইসলাম জানান, বাল্যবিয়ে হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার দুপুর ২টার সময় রশিকনগর এলাকায় উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বর-কনে, কনের মা, বরের মামা ও দুলভাইকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সুমাইয়া খাতুন বাল্যবিয়ে সম্পন্ন হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে। এঘটনায় উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সাহিদা আকতার বাদি হয়ে বাল্যবিয়ে নিরোধ ২০১৭ আইনে বর-কনেসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Top