বই আপনাকে ধৈর্যশীল মানুষে রুপান্তরিত করবে

aaron-burden-238711.jpg
মাহিদুল ইসলাম মাহি,ঢাকা কলেজ :
শারীরিক ব্যায়াম যেমন মানুষের শরীরকে সুস্থ রাখে, ভাল বই মানুষের মস্তিষ্ককে সুস্থ রাখে। যখন আপনি নানান রকম দুশ্চিন্তায় ভোগেন তখন একটি বই আপনাকে ওসব চিন্তা থেকে মুক্তি দিতে পারে।বেশি বেশি বই পড়লে আপনার শব্দ ভান্ডার সমৃদ্ধ হবে। যা আপনাকে কথা বলার ক্ষেত্রে,লেখার ক্ষেত্রে সাহায্য করবে।
যত বেশী বই পড়বেন তত বেশী জ্ঞান আহরণ করবেন। আর জ্ঞানের মত দামি কিছুই হয় না জ্ঞানের কাছে সব কিছুই হার মানে।উপন্যাস পড়ে আপনি বিভিন্ন মানুষের চরিত্র সম্পর্কে জানতে পারবেন,কিভাবে মানুষের উত্থান-পতন হয় কিভাবে তারা নতুন করে ঘুরে দাড়ায় যা আপনাকে খারাপ সময়ে সাহস যোগাবে।বই পড়ার মাধ্যমে চিন্তাশক্তি বাড়ে কোনো কিছু বিশ্লেষন করার ক্ষমতা বাড়ে।
বই আপনাকে ধৈর্যশীল মানুষে রুপান্তরিত করবে।বই পড়তে ধৈর্য লাগে আপনাকে কখনো কখনো ঘন্টার পর ঘন্টা বই নিয়ে বসে থেকে বইয়ের লেখনিটি পড়ে শেষ করতে হবে,এটা আপনাকে ধৈর্য বাড়াতে সাহায্য করবে। বই আত্মার উন্নতি সাধন করে,মনুষ্যত্ব বাড়ায়,বুদ্ধিমতা বাড়ায়।
বইয়ের মাধ্যমে  বিভিন্ন  সংস্কৃতি,আচার-আচরন,জীবনী সম্পর্কে জানা যায় যা বুদ্ধিমত্তা বিকাশে সহায়তা করে।বই পড়ে জ্ঞান আহরন করা যায় আর জ্ঞানী লোক অবশ্যই বুদ্ধিমান।
সমৃদ্ধ জাতি গঠনে বই পড়ার কোনো বিকল্প নেই।বই মানুষের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটায়,মানুষকে সৃজনশীল করে তোলে।বই মানুষকে দায়িত্বশীল, সচেতন করে তোলে দেশকে ভালবাসতে শেখায়।আমাদের তরুন সমাজকে বই পড়ার আগ্রহী করে তুলতে হবে  কারন তারাই  একসময় দেশকে নেতৃত্ব দিবে।
গ্রামে গ্রামে পাঠাগার গড়ে তুলতে হবে যেন জ্ঞানের বিকাশ সর্বস্থানে  ছড়িয়ে পরে।
স্পিনোজা বলেছিলেন ” ভালো খাদ্য খেলে পেট ভরে কিন্তু ভাল বই মানুষের আত্মাকে পরিতৃপ্ত করে”।
বই পড়ি সুন্দর সমাজ গড়ি।
Top