আগামী ১২ এপ্রিল যশোরে ১৪ দলীয় জোটের জনসভা

images-9.jpg

আব্দুর রহিম রানা, যশোর :

আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটকে গতিশীল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে ১২ এপ্রিল যশোরের ঐতিহাসিক টাউন হল ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে ১৪ দলীয় জোটের জনসভা।

সভায় কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমসহ জোটের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত থাকবেন। জনসভা সফল করতে গতকাল যশোর জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জোটের নেতাদের মধ্যে এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলীয় জোটের যশোরের সমন্বয়ক শাহীন চাকলাদারের সঞ্চালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন জাসদের কার্যকরী সভাপতি ও জেলা সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা অশোক কুমার রায়, জেলা ন্যাপের সভাপতি মাস্টার নূর জালাল, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ তাজ হোসেন তাজু, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা একেএম খয়রাত হোসেন, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রেজাউল ইসলাম, উপ-প্রচার সম্পাদক জিয়াউল হাসান হ্যাপী, দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ হাসান বিপু, ওয়ার্কার্স পার্টির যশোরের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু, যুব মৈত্রী যশোরের সভাপতি অনুপ কুমার পিন্টু, জেলা জাসদের সহ-সভাপতি আহসানুল্লাহ ময়না, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কায়েস, জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফ আহমেদ বাপী, দপ্তর সম্পাদক মুস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ। প্রস্তুতি সভায় আসছে জনসভা সফল করতে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

১৪ দলীয় সূত্রে জানা যায়, আগামী নির্বাচনে জামায়াত-বিএনপিসহ স্বাধীনতা বিরোধীদের পরাজিত করতে জোটকে শক্তিশালী করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে কেন্দ্র থেকে যশোরে জোটের জনসভা করতে একটি চিঠি দেওয়া হয়। চিঠিতে ৫ এপ্রিল যশোরে জনসভা করার প্রস্তুতি নিতে বলা হয়। তবে গতকালের সভায় ১৪ দলীয় জোটের যশোরের নেতারা ১২ এপ্রিল জনসভা করার সিদ্ধান্ত নেন। একই সাথে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, জাসদের সভাপতি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুসহ শীর্ষ নেতাদের জনসভায় থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করতে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে আলোচনা করার দায়িত্ব দেওয়া হয় জোটের জেলা সমন্বয়ক শাহীন চাকলাদারকে।

গতকালের সভায় শাহীন চাকলাদার ১৪ দলীয় জোটকে শক্তিশালী ও গতিশীল করার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, ‘আগামী নির্বাচন হবে নিরপেক্ষ ও আমাদের জন্য একটি পরীক্ষা। সেই পরীক্ষায় আমরা পরাজিত হলে বাংলাদেশে ব্যাপক অরাজকতার সৃষ্টি হবে। অর্থনৈতিক ও সামাজিক সূচকে আমাদের যে অর্জন তা থমকে যাবে। এজন্য ১৪ দলীয় জোটকে শুধু জেলায় নয়, উপজেলা পর্যায়েও শক্তিশালী করতে হবে। এজন্য উপজেলায় আমাদের সভা, সমাবেশের আয়োজন করতে হবে।’

জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার রায় বলেন, ‘নির্বাচন ও বিভিন্ন বিষয়ে ঐক্যমতের ভিত্তিতে গড়ে তোলা ১৪ দলের মধ্যে সমন্বয় থাকতে হবে। যদি জোট সজিব না থাকে, সক্রিয় না থাকে তাহলে আমাদের বড় ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে।’

গতকালের প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত একাধিক নেতা জানিয়েছেন, জোটের মধ্যে সমন্বয় বাড়ানোর ব্যাপারে যশোরের সব দলের নেতারা জোর দেন। তারা মনে করছেন আগামী নির্বাচনে জয়ী হতে জোটকে গতিশীল করার কোন বিকল্প নেই। এজন্য আসছে জনসভার আগে যশোর পৌরসভার সব ওয়ার্ডে ১৪ দলীয় জোটের প্রস্তুতি সভা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

এছাড়া প্রতি উপজেলা থেকে জনসভায় জোটের ব্যানারে নেতাকর্মীদের আসার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হবে। আর ১২ এপ্রিলের পরে জোটের নেতৃত্বে জেলা শহরসহ বিভিন্ন উপজেলায় নিয়মিত সভা, সমাবেশ করার ব্যাপারে একমত হন নেতারা।

Top