আগামী নির্বাচনে মৌলভীবাজার-৩ আসনে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে লড়তে চান ডা:জুয়েল আহমদ ফয়েজ।

29432976_1192082107561988_4565727497538240512_n.jpg
মু.তারিকুল ইসলাম,মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি।
জাতীয় সংসদ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে সারাদেশে ৷ সংশয় আর সম্ভাবনা কে সামনে রেখে নির্বাচনী হাওয়ায় পাল তুলে ক্যাম্পেইন ,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ,ব্যানার ও ফেস্টুনে প্রচার প্রচারণায় সরব হয়ে উঠেছেন বিভিন্ন দলের এক বা একাধিক প্রার্থী ৷
আসন্ন একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মৌলভীবাজার ০৩ (রাজনগর -মৌলভীবাজার) আসনে জাতীয় পার্টির টিকিটে নির্বাচন করতে চান তরুণ রাজনীতিবিদ ডাঃ জুয়েল আহমেদ ফয়েজ ৷
ডাঃ জুয়েল আহমেদ ফয়েজ মৌলভীবাজার সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের কেশবচর গ্রামের আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন নামধার সাহেবের ছোটপুত্র ৷ ১৯৮৯ সালে জন্ম নেওয়া তরুন নেতা জালালাবাদ হোমিও মেডিকেল কলেজ থেকে ডি এইচ এম এস ডিগ্রী লাভ করেন৷ জালালাবাদ হোমিও মেডিকেল কলেজ অধ্যায়নকালীন সময়ে জাতীয় পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট জি এম কাদেরের সাথে পরিচয় হয় তার ৷
তিনি জাতীয় পার্টির রাজনীতিতে অনুপ্রাণিত হয়ে জিএম কাদেরের সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং জাতীয় পার্টির সাথে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং জাতীয় পার্টির রাজনীতির সাথে যুক্ত হন ৷৷ তিনি জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির আহব্বায়ক কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য ছিলেন ৷ ২০১৬ সালে জাতীয় পার্টির প্রেসিডেন্ট হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ তাকে উনার আত্মজীবনী “আমার কর্ম আমার জীবন” উপহার দেন এবং উনার সাথে সখ্যতা গড়ে উঠে। হঠাৎ করেই দলীয় সিদ্ধান্তে তিনি গত ইউপি নির্বাচনে নিজ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রাথী হিসাবে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন ৷ মুলত তখন থেকেই তিনি রাজনীতি মাঠে পরিচিত হন ৷ তার রাজনীতিতে আসার অনুপ্রেরণা হিসাবে আছেন তার চাচা মরহুম মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন যিনি বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক সমিতির সভাপতি ছিলেন ৷ তিনি ১৯৭৭ সালে প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের অনুরোধে বিএনপিতে যোগদান করেন এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন।পরবর্তীতে তিনি লন্ডনে স্থায়ী ভাবে বসবাস শুরু করেন এবং হোমিওপ্যাথিক কনসালটেন্ট হিসাবে দেশ ও আন্তর্জাতিক খ্যাতি অর্জন করেন। রাজনীতিতে আসার কারন জানতে চাইলে তিনি জানান তরুণ প্রজন্মের অংশগ্রহণ ছাড়া দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন সম্ভব নয় ৷ এজন্যেই তিনি রাজনীতিতে যোগদান করেছেন ৷
মৌলভীবাজার-রাজনগর কে নিয়ে তার ভিশন ও মিশন সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি জানান বিগত সময়ে বার বার চেষ্টা করেও যে কাজ হয়নি তা তিনি জনগনের সর্মথন নিয়ে করতে চান ৷ মৌলভীবাজার শহরের যানজট নিরসনে কাজ করতে চান ৷ মৌলভীবাজার – রাজনগর দরিদ্র ও অসহায় মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন কাজ করতে চান ৷
তিনি মাদক মুক্ত দেশের স্বপ্ন দেখেন এবং বিভিন্ন মাদক বিরোধী আন্দোলনের সাথে জরিত হয়ে কাজ করছেন৷ তিনি জানান তার নিজ এলাকা কেশবচরে বরাক নদীতে একটি সেতুর অভাবে প্রায় ৩৫ টি গ্রামের পঞ্চাশ হাজার মানুষের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে কিন্তু বিগত সময়ে বহু বার আশ্বস্ত করা হলেও সেতু নির্মান হয়নি ৷ তিনি এই সেতুটি নির্মাণ করে জনগনের সেবা করতে চান।দূর্নীতি ,স্বজনপ্রীতির উর্দ্ধে থেকে প্রতিহিংসার রাজনীতি থেকে বের হয়ে এলাকা বাসীর উন্নয়নে অংশ গ্রহন করতে চান জাতীয় পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট জি এম কাদেরের স্নেহসিক্ত এই তরুন নেতা ৷ তিনি শতভাগ আশবাদী যে তিনিই লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে মৌলভীবাজার ০৩ আসনে জাপার প্রতিনিধিত্ব করবেন ৷ তিনি এলাকা বাসী বন্ধু শুভাকাঙ্খী সাংবাদিক সহ সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেন।

Top