ডোমারে ভূয়া সাংবাদিক গণধোলাইয়ের শিকার

IMG_201.jpg

ডোমার( নীলফামারী প্রতিনিধি):
নীলফামারীর ডোমার জোড়াবাড়ীতে ভূয়া সাংবাদিক খাটো মানিক (২৫) গণধোলাইয়ের শিকার হয়ে হাসপাতালে। ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের আজিজার মিয়ার হাটে। এলাকাবাসী সুত্রে যানাযায়, ১৯ মার্চ সোমবার সন্ধ্যায় বাজারে খাটো মানিক সাংবাদিক পরিচয়ে আলাপচারিতা কালে সংশ্লিষ্ট ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুস সালাম তার কাছে কোন পত্রিকার প্রতিনিধি এবং আইডি কার্ড দেখতে চাইলে মেম্বারকে উল্টো গালিগালাজ করে। শেষ পর্যন্ত আইডি কার্ড দেখাতে না পারায় মেম্বার তাকে লাঞ্চিত করে এবং বাজারের লোকজন গণধোলাই দেয়। এ বিষয়ে মেম্বার আব্দুস সালাম জানান, তারই ওয়ার্ডের সাইকেল মেকার মোসলেম উদ্দিনের ছেলে খাটো মানিক দীর্ঘদিন ধরে শিশুদের প্রাইভেট পড়াতেন, গত ইউপি নির্বাচনে আমার সাথে প্রতিদ্বন্দিতা করে মাত্র ৩টি ভোট পায় এবং আমি বিপুল ভোটে জয়ী হই। হটাৎ গত ৮ মাস থেকে নিজেকে গোয়েন্দা বাহিনীর লোক, আবার কখনো সাংবাদিক পরিচয়ে এলাকায় বাল্য বিবাহ, ক্যারামবোর্ড খেলা, জুয়ার আসর, ঔষধের দোকান, কাপড়ের দোকানসহ বিভিন্ন স্থানে মানুষকে হুমকি, ধমকি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদাবাজী করে আসছে। গত মাসে বাজারের হোটেলে টিভিতে ক্রিকেট খেলা দেখার সময় পুলিশকে সংবাদ দিয়ে ৫ জন নিরিহ ছেলেকে ধরিয়ে দেয়, ওই রাতে প্রতিটি অভিভাবকের বাড়ীতে গিয়ে পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে আসামী ছেড়ে নিয়ে আসার নাম করে, সবার কাছে প্রায় ১৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় ওই ভুয়া সাংবাদিক খাটো মানিক। ইউনিয়ন কমিউিনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি আজিজুল ইসলাম জানান, প্রাইভেট পড়াতে পড়াতে হটাৎ গোয়েন্দা ও সাংবাদিক পরিচয়ে রাতে বেরাতে এলাকার মানুষকে আতংকিত করে বেড়াচ্ছে, পুলিশের ভয় দেখিয়ে অনেক জুয়াড়ী ও মাদক সেবীদের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে সে, তার অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে পড়েছে। হটাৎ করে গোয়েন্দা বা সাংবাদিক হওয়ায় জনমনে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। অশ্লালীন আচরণের কারণে মেম্বার ও বাজারের লোকের হাতে গণধোলাই খেয়ে মামলা করার ভয় দেখিয়ে বোড়াগাড়ী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। তার অত্যাচারের হাত থেকে রক্ষাপেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী।

Top